মেইন ম্যেনু

ক্যারিয়ারের জন্য অনেক কিছুই করতে হয়…

‘ক্যারিয়ারের জন্য অনেক কিছুই করতে হয়। নিজেকে তুলে ধরতে হয় আকর্ষনীয়ভাবে। আর বর্তমান প্রেক্ষাপটে জিরো ফিগারের ট্রেন্ড একটু বেশীই পরিলক্ষিত হচ্ছে। আর আমিও নিজেকে সেভাবে বাগে এনেছি। অর্থাৎ পারফেক্ট জিরো ফিগার বলতে যা বোঝায় তা এখন আমার আছে।’ নিজের শারীরিক সৌন্দর্য নিয়ে এমন ভাবেই বহি:প্রকাশ ঘটালেন হালের আলোচতি অভিনেত্রী পরীমণি। খবর:বিডিপ্রতিদিন

বর্তমানে জাজ মাল্টিমিডিয়ার ব্যানারে বিগ বাজেটের ‘রক্ত’ ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করছেন পরী। ইতোমধ্যে পশ্চিমবঙ্গের বেশ কয়েকটি লোকেশনে ক্যামেরা অন হয়েছে নির্মিতব্য এ ছবিটির। এ ছবির আরেকটি ভাইটাল দিক হলো বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের চলচ্চিত্রের ইতিহাসে সবচে’ ব্যয়বহুল আইটেম গান দেখা যাবে এতে।

আর আইটেম কন্যা হিসেবে দেখা যাবে পরীমণিকে। চোখ ধাঁধানো এই আইটেম গানটির চিত্রায়নে স্টেডি ক্যামসহ ব্যয়বহুল ৩টি ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে।

গতকাল শনিবার ঢাকায় ফিরেছেন পরী। বর্তমান ব্যস্ততা ও অন্যান্য প্রসঙ্গ নিয়ে পরীমণি বলেন, ‘এখন আমার সব ধ্যান জ্ঞান ‘রক্ত’ নিয়ে। শিগগিরই থাইল্যান্ড পাড়ি দিব শুটিংয়ের কাজে। সবচেয়ে মজার কথা এ ছবিটির জন্য নিজেকে জিরো ফিগারে নিয়ে এসেছি। তাও কিনা পারফেক্ট জিরো ফিগার।’

পারফেক্ট জিরো ফিগার-ঠিক বুঝলাম না, একটু পরিস্কার করে বলবেন কি? অনেকটা হেসে পরীমণি বলেন, ‘দেখুন শিকারি ছবির আগে শাকিব খানের অবয়ব কেমন ছিল আর ছবিতে কি দেখা গেল। এ ছবির জন্য শাকিব ভাই অনেক কষ্ট করেছেন। ঠিক তেমনি ‘রক্ত’ ছবির জন্য নিজেকে দারুনভাবে চেঞ্জ করেছি আমি। কেউ কেউ মনে করেন হাড্ডিসার বা অনেক স্লিম হলেই জিরো ফিগার। আমার মতে, আসলে তা কিন্তু নয়। পারফেক্ট জিরো ফিগার তথনই হবে যখন শারীরিক সৌন্দর্যকে পুজি করে শারীরিক অবয়ব বিকশিত হয়। আশা করি আর না বললেও বুঝবেন।’

পরীমণি আরও বলেন, ‘মহুয়া সুন্দরীতে অভিনয় করার জন্য ৫ কেজি ওজন বাড়াতে হয়েছিল। এরপর খুব একটা নজর দেয়া হয়নি এ বিষয়টাতে। যা রক্ত ছবি করতে গিয়ে পুরোপুরি চেষ্টা করেছি জিরো ফিগারে নিয়ে আসতে। আশা করি দর্শকরা এর প্রতিফলন দেখতে পাবেন পর্দায়।’

উল্লেখ্য, ‘রক্ত’ ছবিটি আগামী কুরবানির ঈদে মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে। ছবিতে পরীমণির বিপরীতে অভিনয় করছেন নবাগত রিক্ত রোশন।



(পরের সংবাদ) »