মেইন ম্যেনু

ক্রিকেটে ‘দ্বিতীয় জীবন’ শুরু আশরাফুলের

তিন বছর পর আবারো মিরপুর ইনডোরে দেখা গেল মোহাম্মদ আশরাফুলকে। ব্যাট-প্যাড, হাতে গ্লাভস নিয়ে ছুটলেন নেটের দিকে। বোলিং মেশিনে ঝালিয়ে নিলেন নিজের ব্যাটিংটা। আউটসুইং-ইনসুইং কোনো বলই তাকে থামাতে পারেনি। সেই আগের মতোই ব্যাট চালালেন সাবেক এই অধিনায়ক।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) দ্বিতীয় আসরে ২০১৩ সালে ফিক্সিং-কাণ্ডে জড়িয়ে তিন বছর আন্তর্জাতিক ও ঘরোয়া ক্রিকেটে নিষিদ্ধ ছিলেন ৬১ টেস্ট ও ১৭৭ ওয়ানডে খেলা আশরাফুল। তবে থেমে থাকেন নি তিনি। নিজ উদ্যেগে ঠিকই অনুশীলন করেছিলেন টেস্টে ২,৭৩৭ ও ওয়ানডেতে ৩,৪৬৮ রান করা এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান।

বৃহস্পতিবার নেট অনুশীলনের এক ফাঁকে সাংবাদিকদের এ ব্যাপারে আশরাফুল বললেন, ‘শেষ তিন বছর কিন্তু আমি নিজে নিজে অনুশীলন করেছি ওয়াহিদ স্যার ও সারোয়ার ইমরান স্যারের কাছে। ক্রিকেট বোর্ডের অধীনে মিরপুরে অনুশীলন করতে পারিনি। এখন সে সুযোগ পেয়েছি, তা কাজে লাগাতে চাই। সবার সহযোগিতা হয়তো পাবো। কোচিং স্টাফ, ট্রেনারদের সহায়তাও পাবো।’

ঠিক তিন বছর পাঁচ মাস আগে মিরপুরে অনুশীলন করেছিলেন ওয়ানডেতে ৩টি ও টেস্টে ৬টি সেঞ্চুরি পাওয়া আশরাফুল। সেটা এই ডানহাতি ব্যাটসম্যানের বেশ ভালোমতোই মনে রয়েছে। এ ব্যাপারে অ্যাশ বলেন, ‘ তিন বছর পাঁচ মাস পর নেটে ফিরে খুব ভালো লাগছে। আশা করি বাকি জীবনটা যেন ভালোভাবে কাটাতে পারি। এখানকার সুযোগ-সুবিধা ব্যবহার করে যেন ভালো ভালো ইনিংস উপহার দিতে পারি সেটাই আমার লক্ষ্য থাকবে।’

এর আগে গত ১৩ আগস্ট তিন বছরের নিষেধাজ্ঞা শেষে ক্রিকেটে ফেরেন আশরাফুল। এরপর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করেন তিনি। কিভাবে ক্রিকেটে নিজের দ্বিতীয় জীবন শুরু করবেন।

ক্রিকেটে ফিরলেও এখনো নিষেধাজ্ঞা থেকে পুরোপুরি মুক্ত হতে পারেন নি আশরাফুল। আপাতত বিপিএল এবং আন্তর্জাতিক ম্যাচ ছাড়া দেশের সব ঘরোয়া লিগে খেলতে পারবেন তিনি। তবে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে ঘরোয়া লিগের ফ্রাঞ্চাইজিরা তাকে দলে নেবে তো?