মেইন ম্যেনু

খানসামায় দোকান বিহীন বিসিআইসি ডিলার ॥ চাষীরা প্রতারিত

মোহাম্মদ মানিক হোসেন, চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) থেকে: দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় বিসিআইসি অনুমোদিত সার ডিলারের দোকান না থাকায় চাষিরা বিপাকে। খুচরা দোকান থেকে চড়া দামে কিনছে নিম্নমানের সার।

কারণ হিসেবে দেখা গেছে, গোয়ালডিহি ইউনিয়নে বিসিআইসি অনুমোদিত সার ডিলারদের মধ্যে জমিস ব্রাদার্সের কোন দোকান ঘর নেই। কিন্তু তিনি দীর্ঘ ছয় মাস ধরে তার নামের বরাদ্দকৃত সার উত্তোলন করে কাগজপত্রে বিক্রি দেখিয়েছেন।

চলতি মাসে তিনি ডিএপি, এমওপি, টিএসপি সার প্রায় ৩০ টনের উর্ধে এবং ইউরিয়া সার প্রায় ৪০ টনের উর্ধে উত্তোল করে বাইরে বিক্রি করেছেন বলেও খবর পাওয়া গেছে। ফলে, স্থানীয় কৃষকরা খুচরা দোকান থেকে চড়া দামে নি¤œ মানের সার কিনতে বাধ্য হচ্ছেন। এতে করে, একদিকে যেমন চাষিরা প্রতাতি হচ্ছে, অপরদিকে চলতি মৌসুমে ফসলক্ষেতে ব্যাপক প্রভাব পরেছে।

কথা হয়, গোয়ালডিহি গ্রামের ভুট্টা ও রসুন চাষী নুর ইসলাম, আব্দুর রাজ্জাক, খোদা বকস, জিয়াউর রহমানসহ অনেকের সাথে। তারা বলেন, জমিস ব্রাদার্সের কাছে সার পাওয়া তো দূরের কথা। তাদের কাউকেই দেখা পাওয়া যায় না।

এছাড়া গোয়ালডিহি ইউনিয়নে জমিস ব্রাদার্সের কোন দোকান ঘর নেই এবং তিনি চিরিরবন্দর উপজেলার জোত সাতনালা গ্রামের বেসার উদ্দিনের ছেলে বলে চাষিরা জানান।

এ ব্যাপারে প্রথমে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন কৃষি উপ-সহকারী কর্মকর্তা সমসের আলীর সাথে সরাসরি কথা হলে তিনি বলেন, এ ইউনিয়নে জসিম ব্রাদার্সের দোকান ঘর থাকার কথা। কিন্তু কোন দোকান ঘর দেখি না। পরে উপজেলা কৃষি অফিসার এজামুল হকের সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ হলে তিনি বলেন, বিষয়টি আমি জানি। সেটি নিয়ে সেবালের টাইম কথা হয়েছে। আমি দেখতেছি। বলে ফোন কেটে দেন।