মেইন ম্যেনু

খানসামায় বাল্যবিয়ের অপরাধে জেল-জরিমানা

দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার পল্লীতে বাল্যবিয়ে দেয়ার অপরাধে বর ও কনের বাবা এবং ঘটকের জেল দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনাটি গত শুক্রবার উপজেলার আলোকঝাড়ী ইউনিয়নের শুশুলী গ্রামের রাজকুমার মাষ্টার পাড়ায় ঘটেছে।

জানাগেছে, উপজেলার আলোকঝাড়ী ইউনিয়নের শুশুলী গ্রামের রাজকুমার মাষ্টার পাড়ার দিনবন্ধু রায়ের কন্যা আলোকঝাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণী পড়–য়া ছাত্রী (১৩) মনিকা রায় ও একই গ্রামের জগেশ্বর রায়ের পুত্র হরিদাশ রায় (২৮) এর সাথে গোপনে বিয়ের আয়োজন করতেছিলেন।

ঘটনাটি জানতে পেরে ইউনিয়ন শিশু সুরক্ষা কমিটি ও এলাকার স্কুল শিক্ষক ও এসএমসি কমিটির সদস্যরা ওই ছাত্রীর বাড়িতে গিয়ে তার পিতা মাতাকে বাল্যবিবাহের কুফল সর্ম্পকে অবগত করায়। এরপরের মেয়ের অভিভাবক ২৭ নভেম্বর শুক্রবার রাতে পারিবারিকভাবে তাদের বিয়ের অনুষ্ঠানের যাবতীয় কার্যক্রম সম্পন্ন করছিল।

এ খবর জানতে পেরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট মো: সাজেবুর রহমান ও থানা অফিসার ইনচার্জ কৃষ্ণ সরকার বিয়ের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন ১৯২৯ এর ৪নং ধারা অনুযায়ী পাত্র জগেশ্বর রায়কে ১ (এক) মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড এবং একই আইনের ৫নং ধারা অনুযায়ী মেয়ের বাবা দিনবন্ধু রায়কে ১০ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন।

বাল্য বিয়ে সংগঠিত করার অপরাধে ঘটক কৃষ্ণ চন্দ্র রায়, পিতাঃ মৃত: কাশিনাথ রায়, গ্রাম: মল্লিকাদহ, দেবীগঞ্জ, পঞ্চগড় কে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন ভ্রাম্যমান আদালত। এ ঘটনাটি এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।