মেইন ম্যেনু

খাবারের স্বাদ বাড়াতে মুখরোচক নারিকেল-ধনেপাতার চাটনি (রেসিপি ও ভিডিও)

চাটনি বলতেই আমরা বুঝি দারুণ মনমাতানো ফ্লেভারের টক একটি পদ। কিন্তু টক ছাড়াও ঝাল চাটনি হয় বই কী। তেমনি এক ঝাল ঝাল চাটনি হলো এই নারিকেল এবং ধনেপাতার চাটনি। নারিকেলের মজাদার স্বাদ, ধনেপাতার টাটকা ফ্লেভার এবং কাঁচামরিচের ঝাঁঝ- সব মিলিয়ে যে কারও পছন্দ হবে এই চাটনি। চলুন, দেখে নেই রেসিপিটি।

উপকরণ:
– আধা কাপ নারিকেল কোরানো
– আধা কাপ টাটকা ধনেপাতা
– কাঁচামরিচ চেরা ইচ্ছেমত
– সিকি কাপ ভাজা ছোলার ডাল
– অল্প একটু আদা কুচানো
– লবণ স্বাদমতো
– আধা চা চামচ সরিষা
– ২ টেবিল চামচ তেল
– আধা চা চামচ মাসকলাইয়ের ডাল
– ২টা শুকনো মরিচ
– ১ গোছা কারি পাতা

প্রণালী

১) একটি প্যানে ২ চা চামচ পানি দিন এবং এতে ২ মিনিট নেড়েচেড়ে সেদ্ধ করে নিন ধনেপাতা। ধনেপাতা নেতিয়ে এলে প্যান থেকে নামিয়ে রাখুন।

২) ১ টেবিল চামচ তেল গরম করে নিন। এতে কাঁচামরিচ এবং আদা সাঁতলে নিন ৩০ সেকেন্ড। এরপর ছোলা দিয়ে কিছুক্ষণ সাঁতলে নিন। এরপর দিন নারিকেল। নারিকেল কিছুক্ষণ নেড়ে মিশিয়ে নিয়ে লবণ দিয়ে মিশিয়ে নিন। এরপর চুলা বন্ধ করে মিশ্রণটি ঠাণ্ডা হতে দিন।

৩) নারিকেলের এই মিশ্রণ ঠাণ্ডা হয়ে এলে অল্প পানি দিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। এর সাথে সেদ্ধ ধনেপাতাটা দিয়ে ব্লেন্ড করে নিন।

৪) এই চাটনির জন্য বাগার তৈরি করতে হবে। একটা প্যানে কিছুটা তেল দিন। তেল গরম হলে সরিষা দিন। সরিষা ফুটতে শুরু করলে মাসকলাই ডাল, কারিপাতা এবং শুকনো মরিচ দিয়ে ভেজে নিন যতক্ষণ না ডালটা সোনালি হয়ে আসে। এটা গরম থাকতে থাকতেই চাটনির বাটির ওপর ছড়িয়ে দিন। ভালো করে মিশিয়ে নিন চাটনির সাথে।

ব্যাস, তৈরি হয়ে গেলো আপনার নারিকেল-ধনেপাতার চাটনি। এটা মুলত ভারতীয় দোসার সাইড-ডিশ হিসেবে খাওয়া হয়। কিন্তু আপনি যে নাশতায় চাটনি বা সসের বিকল্প হিসেবেও একে ব্যবহার করতে পারেন। ভালো করে বুঝতে দেখে নিন রেসিপির ভিডিও।