মেইন ম্যেনু

খালাস পেয়ে আবারও বিপদে সালমান!

বোম্বে হাইকোর্ট জানিয়ে দিয়েছেন, উত্থাপিত অভিযোগের কিছুই ঠিকঠাক প্রমাণ করা যায়নি। কাজেই সালমান খান বেকসুর খালাস। এতেই কি মামলা ডিসমিস? উঁহু, আপাতত খুশি হলেও লম্বা সময়ের জন্য আবারও একটু চিন্তায় ভ্রু কোঁচকাতেই পারে দাবাং খানের। মিস মালিনীর খবরে জানা গেল, উচ্চ আদালতের এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার চিন্তা করছে মহারাষ্ট্র সরকার। সালমানকে এত সহজে ছাড় দিতে একটুও রাজি নয় তারা।

বেশ কয়েকটি সংবাদ সংস্থার বরাতে জানা গেছে, মুম্বাই পুলিশের বিরুদ্ধে তদন্তের সব তথ্যাদি নষ্ট করে ফেলার অভিযোগ করছে মহারাষ্ট্র সরকার। সেইসাথে এই বিষয়টিও নিশ্চিত হয়ে যাচ্ছে যে, বোম্বে হাইকোর্টে বেশ তিরষ্কার করা হলেও খুব সহজেই এই মামলার বাদীপক্ষ হাল ছেড়ে দিচ্ছে না। নতুন করে এই মামলা আবারও জেগে ওঠে কী না, সেটি দেখার আছে।

‘অনিচ্ছাকৃতভাবে হত্যা’র অপরাধে দোষী সাব্যস্ত করে সালমানকে মুম্বাইয়ের একটি নিম্ন আদালতে পাঁচ বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়। এরপর বোম্বে হাইকোর্টে সালমান আপিল করলে সেই কারাদণ্ডাদেশ স্থগিত করা হয়।

২০০২ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর সালমান তাঁর টয়োটা ল্যান্ড ক্রুজার চাপিয়ে দেন বান্দ্রার ফুটপাথে ঘুমন্ত পাঁচজন মানুষের ওপর। ডাক্তারি পরীক্ষায় প্রমাণিত হয়, এ সময় ঘোরতর মদ্যপ ছিলেন বলিউডের এই সুপারস্টার।