মেইন ম্যেনু

খালেদার অনুপস্থিতিতে মামলার শুনানি চলছে

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির অভিযোগে দায়ের করা মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া অনুপস্থিতেই তার বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ সংক্রান্ত আবেদনের ওপর শুনাানি শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে ১১টার দিকে এ শুনানি শুরু হয়। রাজধানীর বকশি বাজার আলীয়া মাদ্রাসার মাঠে অস্থায়ী তৃতীয় বিশেষ জজ আদালত-৩ এর বিচারক আবু আহমেদ জমাদার এর আদালতে মামলার কার্যক্রম চলছে।

হাইকোর্টে মামলার বাদী ও তদন্ত কর্মকর্তা (আইও)`র সাক্ষি গ্রহণ সংক্রান্ত আবেদনের ওপর শুনানি করছেন আইনজীবী রেজাক খান। এর আগে গত ৩ মার্চ আংশিক জেরা শেষে মামলার পরবর্তী তারিখ ঠিক করে আদেশ দেন। অপরদিকে আদালতে উপস্থিত আছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল।

এদিকে অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে আদালতে উপস্থিত হননি খালেদা জিয়া। চিকিৎসা শেষে লন্ডন থেকে ২০১৫ সালের ২১ নভেম্বর দেশে ফেরেন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া। এরপর মামলায় আরো বেশ কিছুদিন ধার্য তারিখে অসুস্থতার জন্য আদালতে হাজির হতে পারেননি তিনি। তার পক্ষে আইনজীবীরা হাজিরা মঞ্জুরের আবেদন করেন আদালত।

২০১৫ সালের ৩০ নভেম্বর নাইকো সংক্রান্ত দুর্নীতি মামলায় নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন পান বেগম জিয়া। ঢাকার ৯ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক এম আমিনুল ইসলাম নাইকো মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন।

দুদকের আইনজীবী মোশররফ হোসেন কাজল বলেন, প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন খালেদা জিয়া এ ট্রাস্ট করেছেন। যা আইনত করা যায় না। ট্রাস্টের অর্থ নিজেরা লাভবান হতে ব্যয় ও আত্মসাৎ করেছেন বলে দাবি করেন তিনি।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামে দুর্নীতির অভিযোগে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় দুদক মামলা দায়ের করে। জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে অর্থ লেনদেনের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়াসহ চারজনের নামে ২০১১ সালের ৮ আগস্ট তেজগাঁও থানায় মামলা দায়ের করেন দুদকের সহকারী পরিচালক হারুনুর রশিদ। গত ১৯ মার্চ দুই মামলায় অভিযোগ (চার্জ) গঠন করা হয়।