মেইন ম্যেনু

খালেদার ঘরে ফেরা : কারো পৌষ মাস কারো সর্বনাশ

পবিত্র হজ পালন শেষে দেশে ফিরেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। বৃহস্পতিবার বিকেলে সৌদি আরব থেকে এমিরেটস এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন তিনি।

এদিকে খালেদা জিয়াকে শুভেচ্ছা জানাতে দলের কয়েক হাজার নেতাকর্মী বিকেল থেকেই বিমানবন্দর এলাকায় অবস্থান নেন। খালেদা জিয়া যখন বিমানবন্দরের সামনের সড়কে পৌঁছান তখন নেতাকর্মীরা উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েন। স্বাগত জানিয়ে স্লোগানে স্লোগানে মুখর করে তোলেন বিমানবন্দর এলাকা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, খালেদা জিয়ার দেশে ফেরাকে কেন্দ্র করে বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে দলের নেতাকর্মীরা বিমানবন্দর এলাকায় অবস্থান নেন। কিন্তু বিকেল ৫টায় নেতাকর্মীরা রাস্তা বন্ধ করে স্লোগান শুরু করেন। ফলে উত্তরা থেকে মহাখালী ও বাড্ডা প্রবেশ পথ বন্ধ হয়ে যায়। বিকেল সাড়ে ৫টায় খালেদার গাড়িবহর বিমানবন্দরের সামনের সড়কে পৌঁছালে প্রায় আধা কিলোমিটার রাস্তা আটকে নেতাকর্মীরা খালেদা জিয়াকে শুভেচ্ছা জানান।

খালেদা জিয়াকে শুভেচ্ছা জানাতে নেতাকর্মীরা প্রায় ঘণ্টাব্যাপী রাস্তার এক পাশ বন্ধ করে রাখেন। ফলে এ রুট দিয়ে চলাচলকারী যাত্রীরা পড়েন চরম ভোগান্তিতে। এসময় সাধারণ যাত্রীরা হেঁটেই গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা দিতে বাধ্য হন।

বিশ্বরোডে পৌনে এক ঘণ্টা ধরে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছেন এমন কয়েকজন যাত্রী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আজ খালেদা জিয়া কাল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরেক দিন বিদেশি অন্য কোনো ভিআইপির কারণে সাধারণ মানুষদের চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

তারা জানান, বাস, সিএনজি বা রিকশা কিছুই নেই। বিশ্বরোড থেকে ফার্মগেট তো আর হেঁটে যাওয়া যায় না। তাই বাধ্য হয়ে অপেক্ষা করা ছাড়া কিছুই করার নেই।

তবে বিএনপির কয়েকজন নেতাকর্মী বলেন, প্রধানমন্ত্রী আসলে ক্ষেত্রবিশেষে কয়েক ঘণ্টা যানচলাচল বন্ধ থাকে। খালেদা জিয়া সাবেক তিনবারের প্রধানমন্ত্রী। তাকে শুভেচ্ছা জানাতে রাস্তা আধাঘণ্টা বন্ধ থাকলে দোষের কি?