মেইন ম্যেনু

খালেদা বুধবার হজে যাচ্ছেন, আসছেন তারেকও

পবিত্র হজ পালন করতে বুধবার সন্ধ্যায় সৌদি আরবের উদ্দেশে রওনা হচ্ছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। ওইদিন হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে সৌদি এয়ারলাইনসের একটি ফ্লাইটে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর ঢাকা ছাড়ার কথা।

খালেদা জিয়া সৌদি বাদশার রাজকীয় মেহমান হিসেবে হজ পালন করবেন বলে জানা গেছে।

অন্যদিকে লন্ডন থেকে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান ও বড় ছেলে তারেক রহমান খালেদা জিয়ার সঙ্গে দুবাই হয়ে সৌদি আরবে হজ পালনে যেতে পারেন বলে জানা গেছে।

অন্যান্য সময় রমজানের শেষের দিকে পবিত্র ওমরা পালন করতে সৌদি আরব গেলেও এবার যাননি বেগম খালেদা জিয়া। এ নিয়ে অবশ্য আলোচনা-সমালোচনা কম হয়নি।

শুধু তাই নয়, গতবছরও ভিসা, বিমানের টিকিট সব চূড়ান্ত হওয়ার পরও হঠাৎ করে সৌদি সফর বাতিল করেন খালেদা জিয়া। গণমাধ্যমে তখন খবর প্রকাশিত হয়েছিলো যে,তারেক রহমান ভিসা জটিলতার কারণে সৌদি আরব আসতে পারবেন না যে কারণে এই সফর বাতিল করা হয়।

অবশ্য বিএনপির দাবি ছিল, ‘ওমরা পালন নিয়ে পত্রপত্রিকার প্রকাশিত সংবাদের বাস্তব ভিত্তি নেই। তারেক রহমান সৌদি আরবের ভিসা পেয়েছেন এবং খালেদা জিয়াকে সৌদি বাদশাহ ওমরা পালনের জন্য প্রতিবারের ন্যায় এবারো আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। তবে তিনি কেন যাননি সেটা তার ব্যক্তিগত বিষয়, এটা রাজনৈতিক বিষয় নয়।’

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, মা-বেগম খালেদা জিয়ার যাত্রার সময়ের সঙ্গে মিল রেখে লন্ডন থেকে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের স্ত্রী কন্যাসহ দুবাই যাবার কথা। সেখানে মায়ের সঙ্গে সাক্ষাতের পর ৮ সেপ্টেম্বর জেদ্দা বিমান বন্দরে অবতরণ করার কথা।

২০ সেপ্টেম্বর বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বাংলাদেশের উদ্দেশ্যে এবং সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের যুক্তরাজ্যের উদ্দেশ্যে সৌদি আরব ছাড়ার কথা।

অবশ্য বিএনপির গুলশান কার্যালয়ে একটি সূত্রের দাবি, তারেক রহমান হজ পালন করতে সৌদি আরব যাবেন কিনা তা এখনো নিশ্চিত নয়।