মেইন ম্যেনু

খুব সহজে ঘরোয়া উপায়ে আরশোলা তাড়ান

আরশোলা রোগ জীবানু ছড়ায়। আরশোলা থেকে মুক্তি পাওয়াটা জরুরি। তা করতে গিয়েই আমরা বাজার চলতি নানা রাসায়নিক ব্যবহার করে থাকি। যা কিন্তু আরশোলার থেকেও অনেক বেশি ক্ষতিকারক হতে পারে। তাই ঘরোয়া পদ্ধতিতে আরশোলা তাড়ান। কীভাবে দেখে নিন-

তেজপাতা: রান্নায় স্বাদ বাড়ানোর জন্য তেজপাতা আমরা সকলেই ব্যবহার করি। ঘরের মধ্যে বিভিন্ন জায়গায় তেজপাতা রেখে দিন। তেজপাতার গন্ধে আরশোলা আসবে না।

বেকিং সোডা: বেকিং সোডার সঙ্গে সম পরিমাণ চিনি মিশিয়ে সেই সব জায়গায় ছড়িয়ে দিন যেখানে আরশোলারা ঘাঁটি গেড়ে বসেছে।

পেট্রোলিয়াম জেল: একটি পাত্রের ভিতর এবং বাইরের দেওয়ালে পেট্রোলিয়াম জেল লাগিয়ে নিন। পাত্রে কয়েক টুকরো কাটা ফল বা ফলের খোসা রেখে দিন। ফলের গন্ধে আকৃষ্ট হবে আরশোলার দল। কিন্তু পেট্রোলিয়াম জেল-এ আটকে গিয়ে আর পালাতে পারবে না।

পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা: আরশোলা সাধারণত নোংরা জায়গায় বাসা বাধে। তাই সব সময় বাড়ি পরিষ্কার রাখার চেষ্টা করুন। নিকাশি নালা পরিষ্কার করবেন মাঝে-মধ্যেই। ডাস্টবিন ঢেকে রাখবেন।

ব্লিচিং পাউডার: এক কাপ গরম জলে ব্লিচিং পাউডার মিশিয়ে জায়গায় জায়গায় ছড়িয়ে নিন।

বোরাক্স: আরশোলা মারা এবং তাড়ানোর জন্য বোরাক্সও খুব উপযোগী। বইয়ের তাক বা যেখানে আরশোলার আনাগোনা বেশি সেখানে বোরাক্স পাউডার ছড়িয়ে দিন।

হার্ব: ক্যাটনিপ নামে খুব পরিচিত এক ধরণের হার্ব দিয়েও আরশোলা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। ক্যাটনিপ পাতা থেঁতো করে ব্যবহার করতে পারেন বা এই গরম জলে ক্যাটনিপ পাতা ফুটিয়ে তা আরশোলার উপরে স্প্রে করে দিতেও পারেন।

শশা: শশা কেটে তা অ্যালুমিনিয়াম পাত্রে রেখে দিন। শশা অ্যালুমিনিয়ামের সঙ্গে বিক্রিয়া করে বিষাক্ত হয়ে যায়। যা আরশোলা খেয়ে মারা যাবে।



« (পূর্বের সংবাদ)