মেইন ম্যেনু

খেলার সঙ্গে রাজনীতিকে মেলাতে চান না আফ্রিদি

ভারত-পাকিস্তানের বৈরী সম্পর্কের কথা কারোই অজানা নয়। রাজনৈতিক এই সম্পর্কের প্রভাব খেলার মাঠেও হরহামেশা দেখা যায়। তবে পাকিস্তান টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি প্রতিবেশী এই দুই দেশের রাজনৈতিক তিক্ততা খেলার মাঠ পর্যন্ত নিয়ে না আসার আর্তি জানিয়েছেন।

চলমান এশিয়া কাপে শনিবার পাকিস্তান নিজেদের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে এই ম্যাচ শুরু হবে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়। শুক্রবার ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে আফ্রিদি বলেন, ‘আমি সব সময়ই বিশ্বাস করি খেলাধুলা একটি পরিচ্ছন্ন বিনোদনের জায়গা। তাই খেলার সঙ্গে কখনোই রাজনীতিকে মেশানো ঠিক হবে না। তাহলেই খেলার মাঠের লাড়াইটা আরো মর্যাদাপূর্ণ হবে।’

দুই দেশের ক্রিকেটীয় সম্পর্ক নিয়ে আফ্রিদি বলেন, ‘পাকিস্তানে গিয়ে ভারত খেলুক এটা আমরা সবসমই চাই। ঠিক তেমনি ভারতে গিয়ে পাকিস্তান খেলুক সেটাও নিশ্চয়ই চাইবে তাদের সমর্থকরা। আমাদের সরকারও এ ব্যাপারে বেশ উদ্যোগী। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্যি যে, দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক কোনো ক্ষেত্রেই খুব একটা ভালো নয়।’

এশিয়া কাপে ভারতের শক্তিশালী ব্যাটিংয়ের মোকাবিলা করতে হবে পাকিস্তানকে। এই সম্পর্কে পাকিস্তান অধিনায়ক বলেন, ‘ভারতের যেমন বেশ লম্বা ব্যাটিংলাইন, তেমনি আমাদেরও রয়েছে শক্তিশালী বোলিং আক্রমণ। তাই দুই দলের লড়াইটাও বেশ ভালো হবে।’

এই সংবাদ সম্মেলনে উঠে এসেছে বাংলাদেশ প্রসঙ্গ। এই প্রসঙ্গে আফ্রিদিবলেন, ‘এখানকার মানুষের ভালোবাসায় আমি মুগ্ধ। বাংলাদেশে আমার প্রতিটি মিনিট, প্রতিটি সেকেন্ড খুবই ভালোভাবে কেটেছে। তাই বাংলাদেশে খেলাটা আমার কাছে খুবই বড় ব্যাপার।’