মেইন ম্যেনু

গণজাগরন মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরানের ভাই হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার ৫

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : গণজাগরন মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকারের চাচাতো ভাই দাতাউরকে হত্যার ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে ৫জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শনিবার ভোররাতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে আবুল কাশেম (৫৫) আনোয়ার হোসেন (৩০), মাইদুল ইসলাম (২৫), ও আব্দুল মান্নান (৩৫) নামে ৪ ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে।

রৌমারী থানার এস আই মশিউর রহমান জানান, কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী উপজেলার লাঠিয়ালডাঙ্গা গ্রামের আব্দুস সামাদের পুত্র দাতাউর চলতি বছর ২এপ্রিল রাতে দুর্বৃত্তদের হাতে খুন হয়। পরে রাজিবপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী ব্যাপারী পাড়ার জিঞ্জিরাম নদীর উপর বাঁশ ঝাড়ে লাশ ঝুলে রাখে। দুর্বৃত্তরা দাতাউরকে হত্যা করে গায়ে পোড়া মবিল মাখিয়ে দেয় যেন কেউ চিনতে না পারে। রৌমারী থানায় এ ব্যাপারে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে নিহতের পিতা আব্দুস সালাম।

তদন্ত চলাকালিন সময়ে শনিবার ভোর রাতে এসআই মশিউর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ অভিযান চালিয়ে রৌমারী উপজেলার চর লাঠিয়ালডাঙ্গা গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে সন্দেহভাজন পিতা-পুত্রসহ ৫ জনকে গ্রেফতার করে। সন্দেহভাজন আসামীরা হলেন মরহুম মকবুল হাজীর ছেলে আবুল কাশেম (৫৫), আবুল কাশেমের পুত্র আনোয়ার হোসেন (৩০), মাইদুল ইসলাম (২৫), জাইদুল ইসলাম (২৩) ও মরহুম বছের হাজীর ছেলে আব্দুল মান্নান (৩৫)। মরহুম দাতাউর রহমান গণজাগরন মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকারের চাচাতো ভাই। মামাত ভাইয়ের মেয়ের সাথে প্রেমঘটিত ঘটনার জের ধরে তাকে হত্যা করা হতেপারে বলে গুঞ্জন রয়েছে।

তিনি আরো জানান, ৩রা এপ্রিল দুপুরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে। ঝুলন্ত লাশ থেকে ২০০গজ দুরে ২ধরনের দুটি স্যান্ডেল, কয়েকটি পরিত্যক্ত ব্লেড ও সিগারেটের প্যাকেট, সিগারেটের মুড়ো পাওয়া যায়। সেখানে মাটিতে ধস্তাধস্তির আলামত পাওয়াযায়। পড়েছিল পোড়া মবিলের জেরিকেন। শরীরে পোড়া মবিল লাগিয়ে গলায় গামছা পেচিয়ে ঝুলিয়ে রাখা হয়। এতে ধারনা করা হয় এক স্থানে হত্যার পর অন্য স্থানে লাশ ঝুলিয়ে রাখে আতœহত্যা হিসাবে চালিয়ে দেয়ার জন্য। ঘটনাটি রহস্যে আবৃত।

এ ব্যাপারে রৌমারী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এবিএম সাজেদুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, আলোচিত দাতাউর রহমান হত্যা মামলার সন্দেহভাজন আসামীদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তবে তারা প্রকৃত খুনি কিনা তা জিজ্ঞাসাবাদ ও তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।