মেইন ম্যেনু

গত ৭ বছরে নিবন্ধিত পত্রিকা বেড়েছে ১৬৪৭, মোট ২৮৫৫

বর্তমানে দেশে দৈনিক, সাপ্তাহিক, পাক্ষিক, মাসিক, ত্রৈ-মাসিক ও ষান্মাষিক মিলিয়ে মোট ২ হাজার ৮৫৫টি পত্রিকা রয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর বর্তমান সরকার সাংবিধানিকভাবেই গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত করেছে বলেও জানান তিনি।

বুধবার (৮ জুন) সকালে জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশনে মহিলা আসন-৬ এর সংসদ সদস্য সেলিমা বেগমের এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এ তথ্য জানান।

বর্তমান সরকার গণমাধ্যম এবং সাংবাদিক বান্ধব জানিয়ে তিনি বলেন, ‘সাংবিধানিকভাবেই গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত করা হয়েছে। সংবিধানের ৩৯(২)(খ) অনুচ্ছেদে সংবাদক্ষেত্রের স্বাধীনতায় সম্পূর্ণভাবে বিশ্বাস করে। অবাধ তথ্য প্রবাহ নিশ্চিত করতে বর্তমান সরকার ‘তথ্য অধিকার আইন, ২০০৯ প্রণয়ন করেছে।’

প্রধানমন্ত্রী জানান, বর্তমান সরকার নির্বাচনী অঙ্গিকার অনুযায়ী তথ্যে অবাধ প্রবাহ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ৩১টি বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেলসহ ২৪টি এফএম বেতার ও ৩২টি কমিউনিটি রেডিও’র লাইসেন্স প্রদান করেছে। বিগত ৭ বছর মেয়াদে ১ হাজার ৬৪৭টি পত্রিকার রেজিস্ট্রেশন প্রদান করা হয়েছে।

এছাড়া সরকারি খাতে ৩টি টেলিভিশন চ্যানেল এবং বেসরকারিখাতে ২৪টি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল সম্প্রচার কার্যক্রম পরিচালনার পাশাপাশি ১৬টি এফএম বেতার এবং ১৬টি কমিউনিটি রেডিও সম্প্রসারণ কার্যক্রম পরিচালনা করছে।