মেইন ম্যেনু

গবি’তে জঙ্গিবাদ বিরোধী মানববন্ধন

বিধান মুখার্জী, গণবিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি : তারুণ্যই রুখবে জঙ্গিবাদ। সামাজিক সচেতনতার মাধ্যমেই এই জঙ্গিবাদ দমন সম্ভব। দেশে চলমান জঙ্গি ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে “শুভ চেতনার সূর্যালোকে এগিয়ে যাবে তারুণ্য: হারবে না বাংলাদেশ” স্লোগানে সমকাল সুহৃদ সমাবেশ গণ বিশ্ববিদ্যালয় (গবি)শাখা বুধবার (১০ আগস্ট) জনসচেতনামূলক মানববন্ধনের আয়োজন করে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের বকুলতলায় দুপুর সাড়ে ৩টায় গণ বিশ্ববিদ্যালয় সুহৃদ সমাবেশের আহবায়ক তাজবিদুল ইসলাম সিহাবের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মূর্তজা আলী বাবু, সহকারী রেজিস্ট্রার আবু মোহাম্মদ মোকাম্মেল, সমাজ বিজ্ঞান ও সমাজ কর্ম বিভাগের সিনিয়র শিক্ষক শহীদ মল্লিক, রাজনীতি ও প্রশাসন বিভাগের শিক্ষক মোঃ আবু সালেহ, সামাজিক সংগঠন বৃন্তের সভাপতি বিধান মুখার্জী, সুহৃদ সদস্য কৌশিক আহমেদ, এছাড়াও গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি মাসুদ আজীম, সাধারণ সম্পাদক মেহেদী তারেক একাত্মতা পোষণ করেন।

মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মূর্তজা আলী বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও প্রেরণায় একটি অসাম্প্রদায়িক চিন্তা থেকে গণ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত এবং শিক্ষার্থীরা দীর্ঘদিন যাবত তা লালন করে যাচ্ছে। যে বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি কার্যকর ছাত্রসংসদ রয়েছে, নিয়মিত সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া কার্যক্রম চলে, বাঙালির ইতিহাস ও ঐতিহ্য নিয়ে আলোচনা ও সেমিনার হয়, জাতীয় স্মৃতিসৌধে দেশ-সমাজ-জাতি ও নারীর প্রতি অঙ্গীকার ব্যক্ত করে শপথের মাধ্যমে ক্লাশ শুরু হয় সেই বিশ্ববিদ্যালয়ে কখনও জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ আশ্রয় নিতে পারে না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান ও সমাজ কর্ম বিভাগের শিক্ষক শহীদ মল্লিক বলেন, জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে আমাদের সবার সোচ্চার হতে হবে। এ জন্য প্রথমে তরুণদেরই এগিয়ে আসতে হবে।

গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মেহেদী তারেক বলেন, তরুণ প্রজন্ম এখনও পরিশুদ্ধ ও মুক্তচিন্তায় বিশ্বাসী। মানবিক মূল্যবোধে বিশ্বাসী। তারুণ্যের ঐক্যই উগ্র ধর্মীয় মৌলবাদ, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদমুক্ত বাংলাদেশ গড়াতে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে পারে।

এ সময় সুহৃদ সমাবেশ ঢাকা কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আসিফ আল আজাদ, গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির উপদেষ্টা আব্দুল্লাহ আল কাউসার, সুহৃদ সদস্যদের সঙ্গে বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরাও উপস্থিত ছিলেন।