মেইন ম্যেনু

গরমে আরামদায়ক পোশাক

শীতের পোশাকগুলো বাক্সবন্দী হয়েছে বেশ কয়েকদিন আগেই। এখন চাই গরমের আরামদায়ক পোশাক। এক্ষেত্রে ফ্যাশনেবল আরামদায়ক পোশাকেরই কদর বেশি। সাধ ও সাধ্যের মধ্যে সামঞ্জস্য রেখে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছেলে-মেয়েদের কিনে নিচ্ছেন পছন্দের পোশাকটি। এই গরমে আপনার আরামের সঙ্গী হিসেবে বেছে নিতে পারেন-

টি-শার্ট

আমাদের দেশীয় ফ্যাশন হাউজ গুলোতে পাবেন গোল গলা, ভি গলা, পোলো, হাফ হাতা, ফুল হাতা টি-শার্ট। প্রতিবছরই হাতা, নকশা, কাপড়, প্রিন্ট, কলার ইত্যাদিতে পরিবর্তন আসে। যেমন এবার উজ্জ্বল রঙগুলোর ব্যবহার চোখে পড়ছে বেশি। পছন্দের টি-শার্টগুলো পেয়ে যাবেন ২০০ থেকে ৫০০ টাকার মধ্যে।

শার্ট ও পাঞ্জাবি

প্রায় সব দোকানে সুতির আরামদায়ক শার্ট রাখা পাওয়া যাচ্ছে। আসছে পহেলা বৈশাখের জন্যও আয়োজন চলছে এখন থেকে। লাল-সাদা পাঞ্জাবি জায়গা করে নিয়েছে গরমের এসব পোশাকের মধ্যে। পাতলা কাপড়ের ওপর হালকা ডিজাইনের পাঞ্জাবিগুলোর দাম পড়বে ৮০০ থেকে এক হাজার টাকার মধ্যে। তবে বিভিন্ন শোরুমের পাঞ্জাবির দাম নানা রকম।

কামিজ

কোটিসহ কামিজ এবার গরমে জায়গা করে নিয়েছে প্রায় সব শোরুমে। এগুলোর দাম ৮৫০ থেকে এক হাজার টাকা পর্যন্ত। এখানে রয়েছে হালকা রঙের ওপর নানা ধরনের নকশার কামিজ। তবে বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে কুমিল্লার খাদি কাপড়ের কামিজ, ফতুয়াতো আছেই। এ ছাড়া বিবিয়ানাতে আছে পাতলা কাপড়, ছোট হাতা, ম্যাগি হাতা, হাতের কাজের নকশা করা কামিজ। এগুলোর দাম ৫০০ থেকে দেড় হাজার টাকার মধ্যে। বিভিন্ন শোরুমে মেয়েদের জন্য বৈশাখের ফতুয়া এবং টপসও আনা হয়েছে।

প্যান্ট

প্যান্টের জন্য বিখ্যাত রেক্স, ইজি এবং সোলোতে দেখা পাবেন গ্যাবার্ডিন কাপড়ের একরঙা প্যান্ট। এগুলো ৮০০ থেকে দুই হাজার টাকার মধ্যে পাওয়া যাবে। এ ছাড়া সারা বছর পরার মতো জিনসের প্যান্ট তো আছেই। এসব প্যান্টের দাম ৮০০ থেকে সাড়ে তিন হাজার টাকার মধ্যে।

অন্যান্য

কমবেশি সব শোরুমে হালকা নকশার সুতির শাড়ি পাওয়া যাচ্ছে। শাড়িগুলো সংগ্রহ করতে পারেন হাতের নাগালে থাকা দরের মধ্যে। এছাড়াও শিশুদের জন্যও পাবেন সুতি কাপড়ের ফ্রক। কামিজের সঙ্গে মিলিয়ে দেশালে আনা হয়েছে কাপড়ের গয়না। স্টাইলিশ লুক পেতে এসব অনুষঙ্গে থাকছে খাদি কাপড়ের ওড়না ও থলে ব্যাগ। নিজের রুচি আর পছন্দের সঙ্গে মিলিয়ে কিনে নিতে পারেন আপনার পছন্দেরটি।