মেইন ম্যেনু

গর্ভ ভাড়া বন্ধে আইন হচ্ছে ভারতে

ভারতে নারীদের গর্ভ ভাড়া করে সন্তান নেওয়ার পদ্ধতি বা ‘সারোগেসি’ ভীষণ জনপ্রিয় হলেও এবার এই পদ্ধতিকে প্রায় পুরোপুরি নিষিদ্ধ করার জন্য নতুন আইন অনুমোদন দিয়েছে দেশটির সরকার। বুধবার ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা সিদ্ধান্ত নিয়েছে, দেশের নতুন সারোগেসি আইনে বাণিজ্যিকভাবে গর্ভ ভাড়ার কোনো অনুমতি দেওয়া হবে না।

বিদেশি দম্পতি, প্রবাসী ভারতীয়, একক বাবা-মা, অবিবাহিত কিন্তু একসঙ্গে বসবাসকারী দম্পতি এবং সমকামী দম্পতিও অনেকেই সারোগেসির জন্য এতদিন ভারতকে বেছে নিতেন; কিন্তু নতুন আইনে তাদের সে সুযোগ বন্ধ হয়ে যাবে।

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর বলেন, বাণিজ্যিক সারোগেসি পুরোপুরি নিষিদ্ধ হবে। শুধুমাত্র নি:সন্তান দম্পতি; যারা মেডিক্যাল কারণে বাবা-মা হতে পারছেন না একমাত্র তারাই সন্তানের জন্য কোনও নিকটাত্মীয়ের সাহায্য নিতে পারবেন।

সরকারের এ সিদ্ধান্ত নিয়ে ব্রিফ করতে গিয়ে সুষমা স্বরাজ আরও জানান, যে নিঃসন্তান দম্পতিদের বিয়ের পর অন্তত পাঁচ বছর কেটে গেছে তারাই এই অনুমতি পাবেন। ওই দম্পতির কোনও সন্তান থেকে থাকলে তারাও সারোগেসির অনুমতি পাবেন না। ভারতে সাম্প্রতিক অতীতে শাহরুখ খান বা আমির খানের মতো বলিউড চিত্রতারকারা সারোগেসির সাহায্যে সন্তানের পিতা হয়েছেন; যদিও তারা আগে থেকেই স্বাভাবিক পদ্ধতিতে বাবা ছিলেন।

তুষার কাপুরের মতো চিত্রতারকাও সারোগেসির সাহায্যে বাবা হয়ে নিজেকে সিঙ্গল ফাদার হিসেবে ঘোষণা করেছেন। নতুন আইন পাস হলে এরা কেউই এভাবে তাদের স্বপ্ন পূরণ করতে পারবেন না। স্বরাজ কারও নাম উল্লেখ না করে বলেছেন, সেলেব্রিটিরা অনেকেই সারোগেট বেবি নিচ্ছেন; যদিও তাদের আগে থেকেই হয়তো দুটো ছেলেমেয়ে আছে। তার পরেও তারা তৃতীয় সন্তান নিতে চাইছেন সারোগেসির মাধ্যমে। কারণ তাদের স্ত্রীরা গর্ভধারণের কষ্টটুকু করবেন না, সেই কাজটার জন্য তারা অন্য কাউকে ভাড়া করবেন!

যে নি:সন্তান দম্পতিরা কোনও নিকটাত্মীয়কে সারোগেসির জন্য ব্যবহার করতে অনুমতি পাবেন, তারা শুধু তার মেডিক্যাল খরচটুকু বহন করতে পারবেন। গর্ভধারণের জন্য কোনও ভাড়া দেওয়া চলবে না।

তবে নিকটাত্মীয়র সংজ্ঞা ঠিক কী হবে সেটা এখনও সরকার ঘোষণা করেনি। পার্লামেন্টের আগামী শীতকালীন অধিবেশনে যখন এই বিলটি পেশ করা হবে, তখনই এর বিস্তারিত জানা যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে বিদেশি নাগরিকরা যে ভারতে এসে কোনও মতেই সারোগেসি করানোর অনুমতি পাবেন না, সেটা সরকার চূড়ান্ত করে ফেলেছে। এমন কী প্রবাসী ভারতীয়রাও সেই নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়বেন। বিবিসি বাংলা।