মেইন ম্যেনু

গুগলের ১ মিনিটের মালিক, বেতন ৮ লাখ টাকা!

গত বছর সেপ্টেম্বর মাসের ঘটনা। ইন্টারনেট ঘাঁটতে ঘাঁটতে কচ্ছের বাসিন্দা সন্ময় বেদ হঠাৎই দেখেন, ‘‘গুগল.কম বিক্রি আছে…!’’ বিস্ময়ের অবকাশ মেলেনি তখনও। ১২ ডলার খরচ করে সন্ময় কিনে ফেলেন সেই ডোমেন। কিন্তু ওয়েবমাস্টারের চাবিকাঠি হাতে আসার এক মিনিটের মধ্যেই মালিকানা চলে যায় ফের গুগলের হাতে। কারণ বিক্রির বিজ্ঞাপনটাই বাতিল করে দেয় তারা।

এর জন্য অবশ্য সন্ময়কে একেবারে খালি হাতে ফেরায়নি গুগল। এক মিনিটের মালিকানা বাবদ সংস্থার লভ্যাংশ থেকে ৬০০৬.১৩ ডলার দিয়েছে তারা। টাকায় যার অঙ্ক ৪ লাখেরও বেশি।

যদিও চমকের তখনও বাকি ছিল। সন্ময় ঠিক করেন হঠাৎ করে পেয়ে যাওয়া মালিকানার অর্থ একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থায় দান করে দেবেন। সেই মতো তাঁর ইচ্ছার কথা গুগলকে জানান সন্ময়। ওই সংস্থাও ভাবতে পারেনি এমন কিছু করতে পারেন তাদের এক মিনিটের মালিক। খুশি হয়ে তারা ঠিক করে, প্রাক্তন মালিক যখন ৪ লাখ টাকা দান করবেন বলে ঠিক করেছেন, তা হলে বর্তমান মালিকও ৪ লাখ টাকা দান করবেন। তবে সন্ময়ের হাত দিয়েই। অতএব তারা ঠিক করে ফেলে সন্ময়কে দ্বিগুণ অর্থ, অর্থাৎ ৮ লাখ টাকা দেওয়া হবে।

গুগল আজ নিজেদের ব্লগে লিখেছে— ‘‘সন্ময় বেদের কথাটা নিশ্চয় শুনেই থাকবেন। এক গবেষক এক মিনিটের জন্য গুগল কিনেছিলেন। আমরা প্রথমে ওকে পুরস্কার বাবদ ৬০০৬.১৩ ডলার দেওয়ার কথা ঘোষণা করি। কিন্তু যখন শুনি উনি সমস্ত অর্থই দান করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, তখনই ঠিক করে ফেলি পুরস্কার অর্থ দ্বিগুণ করে দেওয়া হবে।’’ সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে সন্ময় জানিয়েছেন, দেশের ১৮টি রাজ্যে ৪০৪টি ফ্রি-স্কুলে প্রায় ৪০ হাজার গরিব শিশুকে বিনামূল্যে পড়ায় এমন একটি সংগঠনকে ওই টাকা দান করবেন তিনি।

সত্যিই বিক্রি হয়ে যাচ্ছিল গুগল?

আসলে সন্ময় প্রথম নন। আগেও গুগল বিক্রি হয়েছিল। তাঁর মতো অনেকেই গুগল কিনেছিল এক মিনিটের জন্য। নিজেদের ডোমেনের নিরাপত্তা ব্যবস্থার তদারকির জন্য মাঝেমধ্যে এ ধরনের প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে গুগল। ব্রিটেন, পোল্যান্ড, জার্মানি, রোমানিয়া, ইজরায়েল, ব্রাজিল, আমেরিকা, চিন, রাশিয়া থেকে বহু গবেষক অংশ নেন প্রতিযোগিতায়। গত বছর যেমন তোমাজ বজারস্কি ৭০টি বাগ খুঁজে পেয়েছিলেন। এ বারে সেই প্রতিযোগিতাতেই অংশ নিয়েছিলেন সন্ময়।