মেইন ম্যেনু

গুলশান হামলা: ‘তদন্তে ৩ দেশের সহযোগিতা নেওয়া হবে’

রজাধানীর গুলশানে হলি আর্টিসান বেকারি রেস্তরায় হামলার ঘটনা তদন্তে যুক্তরাষ্ট্র, ভারত ও সিঙ্গাপুরের প্রযুক্তি সহায়তা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। তিনি বলেন, ‘পুলিশের জঙ্গি দমনে প্রশিক্ষিত বিশেষ ইউনিট গুলশান হামলায় দায়ের করা মামলার তদন্ত করবে। এক্ষেত্রে প্রয়োজন হলে ওই তিন রাষ্ট্রের সহায়তা নেয়া হবে।’

শনিবার গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে নিজ কার্যালয়ে ঈদ পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময়ের সময় এ কথা জানান তিনি।

কমিশনার বলেন, ‘মূলত গুলশান হামলায় ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হওয়া সব আলামত পরীক্ষা এবং নিহতদের মৃতদেহের রাসায়নিক পরীক্ষার জন্য ওই তিন দেশের প্রযুক্তি সহায়তা নেয়া হবে।’

কমিশনার বলেন, ‘গুলশানের এ হত্যা একটি জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু। সম্মিলিতভাবেই বিষয়টি নিয়ে কাজ করতে হবে।’

প্রসঙ্গত গত ১ জুলাই রাতে গুলশানের কূটনীতিক পাড়ার অভিজাত এই রেস্টুরেন্টে সন্ত্রাসীরা সশস্ত্র হামলা চালিয়ে ১৭ বিদেশিসহ ২০ জিম্মিকে হত্যা করে। সন্ত্রাসীদের ছোড়া গ্রেনেডে প্রাণ যায় ডিবির এসি রবিউল ইসলাম ও বনানী থানার ওসি সালাউদ্দিন খানের।

পরদিন শনিবার সকালে নিরাপত্তা বাহিনী যৌথ অভিযান চালিয়ে সেখান থেকে ১৩ জিম্মিকে জীবিত উদ্ধার করে এবং ৬ জঙ্গির মৃতদেহ পাওয়া যায়।

এ ঘটনার ঠিক ৭ দিনের মাথায় বৃহস্পতিবার (৭ জুলাই) শোলাকিয়ায় ঈদ জামাতের মাঠের কাছে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্যদের ওপর বোমা হামলা চালায় সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় দুই পুলিশ সদস্যসহ ৪ জন নিহত হয়।