মেইন ম্যেনু

‘গুলি বন্ধ করুন, এখানে জানাযা হচ্ছে’

গত কয়েক সপ্তাহে জম্মু ও কাশ্মিরের পুঞ্চ সেক্টরে অনেকবার অস্ত্রবিরতি লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটেছে, কিন্তু এবার অস্ত্রবিরতি লঙ্ঘনের সময় ঘটল অন্যরকম একটি ঘটনা।

শুক্রবার কাশ্মিরের নিয়ন্ত্রণ রেখার কাছে পাকিস্তানি বাহিনীর গুলিতে ১৬ বছরের কিশোর তানভির নিহত হন।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তানভিরের পরিবার তার লাশ তাদের গ্রামের বাড়িতে নিজেদের জায়গায় দাফন করার সিদ্ধান্ত নেয়। নুরকোটে গ্রামে তাদের বাড়িটি নিয়ন্ত্রণ রেখার পাশে। তানভিরের লাশ নিয়ে লোকজন তাদের গ্রামের বাড়ির পথে এগোনোর সময় পাকিস্তানি দিক থেকে গুলিবর্ষণ শুরু হয়।

নতুন করে শুরু হওয়া গুলির কারণে গ্রামবাসীরা ভীত হয়ে পড়েন। তারা নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যাওয়ার চেষ্টা করেন।

তানভিরের জানাযা পড়ানো হচ্ছে। ছবি: এনডিটিভি তানভিরের জানাযা পড়ানো হচ্ছে। ছবি: এনডিটিভি গুলির কারণে লাশ নিয়ে আর এগোনো যাচ্ছিল না। এ পরিস্থিতিতে স্থানীয় একটি মসজিদের মাইক থেকে পাকিস্তানি পক্ষকে গুলি থামাতে অনুরোধ করা হয়।
জম্মু ও কাশ্মিরের আইনসভার সদস্য জাহাঙ্গির মির জানান, মসজিদের মাইকে বলা হয়, “গুলি করে আপনারা একজন মানুষকে মেরে ফেলেছেন। গুলি বন্ধ করুন। আমরা নিহত ব্যক্তির জানাযা পড়াতে চাচ্ছি।”

এরপর গুলিবর্ষণ বন্ধ হলে তানভিরের জানাযা পড়ানো হয় ও তাকে দাফন করা হয়।

সুনিল কুমার নামে সীমান্তবর্তী এক গ্রামবাসী জানান, তারা অত্যন্ত সন্ত্রস্ত অবস্থায় দিন কাটাচ্ছেন।

গত দুই দিনে পাকিস্তানি পক্ষ আরো দুইবার অস্ত্রবিরতি লঙ্ঘন করেছে বলে অভিযোগ করেছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ।

পুলিশ জানিয়েছে, রোববার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ভারতীয় বাহিনীর অবস্থানগুলো লক্ষ্য করে পাকিস্তান থেকে গোলাবর্ষণ ও গুলি করা হয়। ভারতীয় বাহিনীও তার জবাব দেয় বলে জানিয়েছেন এক পুলিশ কর্মকর্তা।