মেইন ম্যেনু

গৃহবধূকে খুনের অভিযোগ

সরকার দুলাল মাহবুব, রাজশাহী থেকে : রাজশাহীর পবায় পপি বেগম নামে দুই সন্তানের জননীকে গলা টিপে হত্যা করা হয়েছে। উপজেলার হরিপুরে শুক্রবার দিবাগত রাতে যে কোনো এক সময় এ ঘটনা ঘটে। পরে শুক্রবার বিষয়টি জানাজানি হয়।

এ ব্যাপারে মৃতের পিতা আইয়ুব নবী পবা থানায় চারজনকে আসামী করে হত্যা মামলা করেছেন। পবা থানায় পুলিশ মৃতের স্বামী ও শ্বাশুড়িকে আটক করেছে।

স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার সকালে পপি বেগম নিজ শয়নকক্ষে মৃত অবস্থায় পড়ে ছিলো। স্বামীর বাড়ির লোকজন বিষয়টিকে স্বাভাবিক মৃত্য বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছিলো। কিন্তু পপির পিতা ও পরিবারের অন্য সদস্যরা বিষয়টি পরিকল্পিতভাবে হত্যা বলে অভিযোগ করেন।

পবা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শরিফুল ইসলাম জানান, মেয়ের পরিবারের কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়ার পরে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য তা রাজশাহী মেডিকেল কলেজ মর্গে ফাঠানো হয়েছে। মামলার প্রেক্ষিতে মৃতের স্বামী মিলন হোসেন ও শ্বাশুড়ি মিনারা বেগমকে আটক করেছেন।

এদিকে গোদাগাড়ি উপজেলার রাজাবাড়ি খারিজাগাতি মোল্লাপাড়ার পপির পিতা আইয়ুব নবী জানান, আট বছর আগে পপির পবার হরিপুরের শাহিনের ছেলে সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই পপিকে স্বামীসহ তার পরিবারের লোকজন নির্যাতন করতো।

পপির প্রথম ৪ মাসের সন্তান পেটে থাকতেই নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে আমার বাড়িতে চলে আসে। এভাবে প্রায় যায় ও আসে। শেষে দুই বছর আগে স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মেন্বাররা গিয়ে আবারো পপিকে নিয়ে আসে।

তিনি বলেন বিয়ের পর থেকে মিলনকে বিভিন্নভাবে প্রায় ৫ লাখ টাকার মত আর্থিক সহযোগিতা করেন।