মেইন ম্যেনু

‘গোপনাঙ্গে হাত দিয়ে আমায় যৌন হেনস্থা করেছে কর্ণ’ -মুখোশ খুলে দিলেন অনুষ্কা

মারাত্মক বোমা ফাটালেন অনুষ্কা শর্মা। গোটা দেশের সামনে বিখ্যাত পরিচালকের মুখোশ খুলে দিলেন বলিউডের এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী! অনুষ্কা যাঁর বিরুদ্ধে এমন ভয়ঙ্কর অভিযোগ আনলেন, তাঁর তো তখন থরহরি কম্পমান অবস্থা। মুখ শুকিয়ে যাওয়ার জোগাড়। এ তো তাঁকে কলঙ্কিত করার প্রয়াসও বটে। তিনিও তো নামকরা একজন মানুষ। গোটা ভারত তাঁকে এক ডাকে চেনে। তাঁর ছবিকে কদর করে।
ভনিতা করে লাভ নেই। ঠোঁটকাটা অনুষ্কা শর্মা কর্ণ জোহরের জনপ্রিয় শো ‘কফি উইথ কর্ণ’তে এসে বিস্ফোরণ ঘটালেন। কোনও রকম দ্বিধাদ্বন্দ্ব না করেই অনুষ্কা বলে ওঠেন, ‘কর্ণ মাঝে মাঝে এমনভাবে আমার শরীর ছোঁয়, যে আমি অস্বস্তিতে পড়ে যাই।’ কিন্তু প্রশ্ন হল, অনুষ্কা হঠাৎই কর্ণের মুখোশ খুলতে গেলেন কেন? শুরুটা করেছিলেন কর্ণ নিজেই। ‘কফি উইথ কর্ণ’ মূলত চ্যাট শো। নানা বিষয়ে আলোচনা হয়। মজা করা হয় এই শোয়ে। সেই শোয়ে অনুষ্কার সঙ্গে এসেছিলেন ক্যাটরিনা কইফ। দুই অতিথি পাশাপাশি বসে সোফায়। এমন সময়ে কর্ণ বলে উঠলেন, অনুষ্কার প্রতি তিনি দুর্বল। এবং ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’ ছবিটার সময়ে কর্ণ খুবই দুর্বল হয়ে পড়েছিলেন অনুষ্কার উপরে। এ কথা স্বীকার করতে দ্বিধা নেই এই পরিচালকের। কিন্তু কর্ণ তো তখনও জানতেন না অনুষ্কার প্রতি দুর্বল— এই স্বীকারোক্তি করে তিনি আগুনে হাত দিয়েছেন। অনুষ্কা পাল্টা দিলেন, ‘খুবই দুঃখিত, তবুও বলতে বাধ্য হচ্ছি, আমি কর্ণের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির মামলা করতে যাচ্ছিলাম।’

অনুষ্কার এ হেন বক্তব্যের পরে কর্ণ হতভম্ব হয়ে যান। অনুষ্কার পাশে বসা সুন্দরী ক্যাটরিনার হালও তখন একই। ভাবটা এরকম, ‘কী বলছেন অনুষ্কা!’ অনুষ্কা এবার ক্যাটরিনার দিকে তাকিয়ে বলেন, ‘জানো, কর্ণ মাঝে মাঝে এমন ভাবে আমার শরীর স্পর্শ করে যে, আমি অস্বস্তিতে পড়ে যাই।’ ক্যাটরিনা বিভ্রান্ত। তিনি আগুন নেভানোর চেষ্টা শুরু করেন। অনুষ্কার বাউন্সার সামলানোর চেষ্টা একটা করেন কর্ণ। বলেন, ‘আরে আমি তো তোমার সঙ্গে মজা করি।’ ক্যাটরিনা প্রসঙ্গ বদলানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু অনুষ্কা যে ছেড়ে কথা বলার পাত্রীই নন। তিনি আবারও বোমা ফাটান। বলে ওঠেন, ‘এমনকী জ্যাকলিনও আমাকে একবার একই কথা বলছিল। মণীষ মালহোত্রের পার্টিতে গিয়েও তুমি জ্যাকলিনের সঙ্গে একই কাজ করেছ।’ কথা শেষ করতে না দিয়ে কর্ণ বলে ওঠেন, ‘আমি অস্বস্তিকর ভাবে জ্যাকলিনের শরীরে হাত দিয়েছি, তাই তো?’ অনুষ্কা বলে ওঠেন, ‘হ্যাঁ।’

পরিস্থিতি বেগতিক দেখে ক্যাটরিনা এ বার কোমর বেঁধে আসরে নেমে পড়েন। বলে ওঠেন, ‘শোনো, আইনি ব্যাপার-স্যাপার নিয়ে পরে আলোচনা করা যাবে। অন্য কোনও শোয়ে আমরা এই সব নিয়ে আবারও আলোচনা করব। আমি তোমাদের দু’ জনকেই ভালবাসি। তোমাদের দু’ জনের কোনও ক্ষতি হোক, এটা আমি চাই না।’ এখন প্রশ্ন হল, অনুষ্কার সঙ্গে কি সত্যি সত্যি কর্ণ এমন কাজ করেছেন? নাকি রসিকতা করে অনুষ্কা এমন সব উদ্ভট কথা বলে বসলেন? যদি গোটা ঘটনাটা মিথ্যা হয়, তা হলে বলতে হবে খুবই বিশ্রী ধরনের রসিকতা করেছেন অনুষ্কা। আর সত্যি হলে কিন্তু চিন্তার বিষয়!