মেইন ম্যেনু

গৌরনদীতে বিএনপির পাল্টাপাল্টি কমিটি নিয়ে চরম উত্তেজনা

কল্যান কুমার চন্দ, বরিশাল থেকে: বরিশালের গৌরনদী উপজেলা বিএনপির দুটি কমিটি নিয়ে দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এনিয়ে যেকোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা রয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে সদ্যঘোষিত আহবায়ক কমিটি প্রত্যাখান করে বিক্ষোভ মিছিল ও সভা করেছেন উপজেলা, পৌর এবং সাতটি ইউনিয়নের বিএনপি ও তার সহযোগী সংগঠনের একাংশের নেতাকর্মীরা।

ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের কসবা এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল শেষে অনুষ্ঠিত সমাবেশে উপজেলা বিএনপি নেতা মোঃ আব্দুল মান্নান খানের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আবুল খালাম খান, রুহুল আমীন বেপারী, হুমায়ুন আকন, সিরাজুল ইসলাম খান, আনোয়ার হোসেন সুজন প্রমুখ।

বক্তারা উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির স্থগিতাদেশ প্রত্যাহারের খবরকে মিথ্যে ও বিভ্রান্তিকর সংবাদ আখ্যায়িত করে বলেন, দলের কতিপয় সুবিধাভোগীরা তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টির জন্য মিথ্যে তথ্য পরিবেশন করেছে।

বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য, উত্তর জেলা বিএনপির সহসভাপতি ও গৌরনদী উপজেলা বিএনপির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সোবহান বলেন, কেন্দ্র থেকে আহবায়ক কমিটির স্থগিতাদেশ প্রত্যাহারের খবরটি নিছক গুজব।

তিনি বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও বরিশাল মহানগর বিএনপির সভাপতি এ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ারের উদ্বৃতি দিয়ে বলেন, আহবায়ক কমিটির স্থগিতাদেশের ব্যাপারে কেন্দ্রীয় নেতারাই কিছু জানেন না।

তিনি নিজেকে এখনও গৌরনদী উপজেলা বিএনপির সভাপতি দাবি করে আরও বলেন, দলের সুবিধাভোগী কতিপয় নেতা নিজেদের খায়েস মেটাতে পরিকল্পিতভাবে বিভিন্ন সংবাদ কর্মীদের কাছে মিথ্যে তথ্য পরিবেশন করে দলের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের বিভ্রান্তির মুখে ফেলতে চাচ্ছে।

উত্তর জেলা বিএনপির সভাপতি মেজবা উদ্দিন ফরহাদ ও সাধারণ সম্পাদক আকন কুদ্দুসুর রহমান জানান, গত তিন মাস পূর্বে গৌরনদী উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব আবুল হোসেন মিয়াকে আহবায়ক করে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি গঠণ করা হয়। গত নভেম্বর মাসে আহবায়ক কমিটি মৌখিকভাবে স্থগিত করা হয়েছিলো। অতিসম্প্রতি আহবায়ক কমিটির স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে।