মেইন ম্যেনু

গৌরনদীতে শতাধিক পরিবারের শত বছরের স্বপ্ন পূরণ

কল্যাণ কুমার চন্দ, বরিশাল : বিলের মধ্যে বসতি স্থাপন করে দীর্ঘ এক’শ বছর থেকে বসবাস করছেন শতাধিক পরিবার। ওইসব পরিবারের সদস্যরা শুকনো মৌসুমে অন্যের জমির ওপর দিয়ে ও বর্ষা মৌসুমে নৌকাই তাদের যাতায়াতের একমাত্র অবলম্বন ছিলো। শুধু যাতায়াত ব্যবস্থা ভাল না হওয়ায় ওইসব পরিবারের সদস্যদের মেয়েদের ভালো কোন জায়গায় বিয়ে পর্যন্ত দিতে পারেননি। ঘটনাটি জেলার গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর ইউনিয়নের জয়শুরকাঠী গ্রামের।

সূত্রমতে, বাটাজোর ও মাহিলাড়া ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী এলাকা হওয়ায় দীর্ঘদিন থেকে জয়শুরকাঠীর ওই বিলাঞ্চলবাসী পরিবারগুলোছিলো অবহেলিত। নির্বাচন আসলেই তাদের একমাত্র দাবি ছিলো একটি রাস্তা নির্মানের। কিন্তু তাদের দাবি কোনদিনই আলোর মুখ দেখেনি। কারণ ভূক্তভোগীরা বাটাজোর ইউনিয়নের বাসিন্দা হলেও তাদের চলাচল করতে হতো মাহিলাড়া ইউনিয়নের ভীমেরপাড় গ্রামের লোকজনদের জমির ওপর দিয়ে।

জয়শুরকাঠী গ্রামের প্রবীণ ব্যক্তি এরফান সিকদার (৮৫) জানান, সম্প্রতি সময়ে তিনি তাদের দুঃখ কষ্টের কথা মাহিলাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সৈকত গুহ পিকলুর কাছে বলে তাদের ভোগান্তি লাঘবের জন্য একটি মাটির রাস্তা নির্মান করে দেয়ার অনুরোধ করেন। ফলশ্রুতিতে গত ১৫ মে সন্ধ্যায় ভীমেরপাড় গ্রামের জমি দাতাদের সাথে আলোচনা করে আধুনিক এস্ক্রেভেটর (ভেকু) মেশিনের সাহায্যে রাস্তা নির্মান করে সুবিধাভোগী বাটাজোর ইউনিয়নের জয়শুরকাঠী গ্রামের শতাধিক পরিবারের স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিয়েছেন দ্বিতীয়বারের ন্যায় নির্বাচিত মাহিলাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈকত গুহ পিকলু।