মেইন ম্যেনু

“গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বাড়ানো জনগণের প্রতি অবিচার”

গ্যাস বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সরকারের সিদ্ধান্তকে জনগণের প্রতি অবিচার দাবি করে অবিলম্বে এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে বিএনপি।

শনিবার দুপুরে দলের নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মুখপাত্র ড. আসাদুজ্জামান রিপন এই দাবি করেন।

রিপন বলেন, বছরের শুরুতে অস্থির রাজনৈতিক সময়ে ‘বিনা ভোটের নির্বাচিত সরকারের’ মত বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন তথাকথিত লোক দেখানো শুনানির নামে আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির যে ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি এর তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ করছে।

তিনি বলেন, জনগণের স্বার্থে রাজনীতি করা দল হিসেবে বিএনপি মনে করে এ দাম বৃদ্ধি অযৌক্তিক এবং এর ফলে নিম্ন আয় ও মধ্যবিত্ত মানুষেরা আরেক দফা দুর্ভোগে পতিত হবে।

রিপনের দাবি, “জনগণের প্রকৃত ভোটে নির্বাচিত হলে সরকার নিজেদের জবাবদিহি করার কথা ভাবতেন। কিন্তু ভোট ছাড়াই ক্ষমতায় আসা যায় বা ক্ষমতায় থাকার স্বপ্ন দেখা যায় বলে তারা দাম বৃদ্ধিতে সাধারণ মানুষের কষ্টের কথা যেমন ভাবেননি, তেমনি কৃষি-শিল্প-ব্যবসায় এই দাম বৃদ্ধি কিভাবে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে-সে বিষয়টিও আমলে নেয়নি ।”

রিপন বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে যখন তেলের দাম কমে গেছে তখন বাংলাদেশে বিদ্যুত ও গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়েছে। এটা অযৌক্তিক ও অগ্রহণযোগ্য। এমন সিদ্ধান্ত জনগণের ওপর চাপিয়ে দেয়া যায় না।”

বিএনপি গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে কোনো কর্মসূচি দিবে কিনা এমন প্রশ্নে রিপন বলেন, “সেটা পড়ে জানানো হবে। দলের নীতিনির্ধারকরা সিদ্ধান্ত নেবেন।”

চলতি বছর বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের গণশুনানীর রিপোর্ট গ্রহণযোগ্য নয় এমন মন্তব্য করে তিনি আবারো সকল শ্রেণি পেশার মানুষের মতামতের ভিত্তিতে রিপোর্ট দেয়ারও দাবি জানান রিপন।

সরকারের কোনো কোনো পকেট ভরার জন্য এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন বিএনপির মুখপাত্র।



(পরের সংবাদ) »