মেইন ম্যেনু

গ্রেফতারি পরোয়ানা মাথায় নিয়ে সংসদে হাজির রানা

গ্রেফতারি পরোয়ানা মাথায় নিয়ে পুলিশের কাছে ‘পলাতক’ এমপি আমানুর রহমান খান রানা সংসদের বৈঠকের খাতায় স্বাক্ষর করে আবার পালিয়েছেন। সংসদ সদস্য পদ রক্ষা করতে অধিবেশন কক্ষের ৪ নম্বর লবিতে রাখা হাজিরা বইয়ে সোমবার সই করে তখনই আবার পালিয়ে যান আওয়ামী লীগের এই এমপি। তবে সংসদের বৈঠকে যোগ দেননি তিনি। সংসদের আইন শাখা-১ সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

টাঙ্গাইল-৩ এর এই বিতর্কিত সংসদ সদস্য হত্যাকাণ্ডের দায়ে গ্রেফতারি পরোয়ানা নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। টাঙ্গাইলের আওয়ামী লীগ নেতা ফারুক আহমেদ হত্যামামলায় অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি রানাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না বলে দাবি করে আসছে পুলিশ। রানাকে গ্রেফতারে গত ৬ এপ্রিল টাঙ্গাইলের আদালত পরোয়ানা জারি করে। তিনি ধরা না পড়ার পর ১৬ মে তার মালামাল বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দেয়া হয়।

পালিয়ে থাকা রানা সর্বশেষ গত বছরের ৫ জুলাই সংসদের অধিবেশনে যোগ দিয়েছিলেন। ফলে অনুপস্থিতির কারণে সংসদ সদস্যপদ হারানোর ঝুঁকি রয়েছে তার।

সংবিধান অনুযায়ী, কোনো এমপি টানা ৯০ কার্যদিবস অনুপস্থিত থাকলে তার সদস্যপদ বাতিল হয়ে যাবে। সংসদের কার্যপ্রণালিবিধি অনুযায়ী, সংসদ এলাকায় কোনো সাংসদকে গ্রেফতার করতে হলে স্পিকারের অনুমতি নিতে হবে।

২০১৩ সালের ১৮ জানুয়ারি গুলি চালিয়ে হত্যা করা হয় আওয়ামী লীগের টাঙ্গাইল জেলা কমিটির সদস্য ফারুককে। হত্যার তিন দিন পর ফারুকের স্ত্রী নাহার আহমেদ টাঙ্গাইল মডেল থানায় অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজনকে আসামি করে মামলা করেন। ওই মামলার এজাহারভুক্ত আসামি রানা ও তার ভাইয়েরা।