মেইন ম্যেনু

ঘন ধোঁয়াশায় আচ্ছন্ন চীন!

চীনের উত্তর পূর্বাংশের একটা বিশাল এলাকা ঘন ধোঁয়াশায় আবৃত হয়ে পড়েছে। কর্তৃপক্ষ হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, এই অবস্থা আগামী শনিবার পর্যন্ত চলতে পারে। ঘটনাটি ঘটেছে চীনের লিওনিং প্রদেশে। কোথাও কোথাও আধা কিমি চেয়ে বেশি দূরত্বের কোন কিছুই খালি চোখে দেখা যাচ্ছে না।

এই কুয়াশাচ্ছন্ন অবস্থা শুরু হয়েছে সপ্তাহের শুরুতে যখন সেখানকার তাপমাত্রা হঠাৎ করে কমে যায় এবং গরম থাকার জন্য গোটা শহরজুড়ে মানুষ কয়লা জ্বালাতে আরম্ভ করে।

চেঙ্গুন শহরের পরিবেশরক্ষা দপ্তরের এক কর্মকর্তা ঝাং বিন সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, উত্তর-পূর্ব প্রদেশগুলোর মত চীনের আরও অনেক শহরেই শীতের সময় তাপ পাওয়ার জন্য জ্বালানি হিসাবে কয়লা ব্যাবহার করা হয় যেটা কিনা ভীষণভাবে বায়ু দূষণ করে।

সংবাদ থেকে আরও জানা যায়, চীনের কৃষকেরা হেমন্তের ফসল কাটার পরে খড় পোঁড়ায় এবং সেই ধোঁয়াও সেখানকার ধোঁয়াশা তৈরিতে দায়ী।

গত মঙ্গলবার লিওনিং প্রদেশে এই ধোঁয়াশা তীব্র রুপ ধারন করে। সেখানকার বাতাসের আদ্রতা ছিল শতকরা ৮০ ভাগের কম। এছাড়া মাঝারি মানের ধোঁয়াশাও দেখা গেছে চীনের বেইজিং, তিয়াঞ্জিনসহ আরও বেশ কয়েকটি প্রদেশে। কোথাও ২/৩ কিমি এর চেয়ে বেশি দৃষ্টিগ্রাহ্যতা ছিলনা।

এই ধোঁয়াশার মূল কারন হচ্ছে বায়ুদূষণ। মাত্রাতিরিক্ত বায়ু দূষণের ফলে সমগ্র চীন এখন সেটার খেসারত দিচ্ছে। ফলে বিমানের অনেক ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে এবং অনেক মহাসড়কে গাড়ি চলাচল বন্ধ।

ওয়ার্ল্ড হেলথ অরগানাইজেশান (ডব্লিউএইচও) থেকে জানানো হয়, চীনের বাতাসে পিএম২.৫ নামের এক ক্ষতিকর বস্তুকণার মাত্রা প্রায় ১৪০০ মাইক্রোগ্রামে পৌঁছেছে যেটা কিনা ২৪ ঘণ্টায় থাকার কথা মাত্র ২৫ মাইক্রোগ্রামে।