মেইন ম্যেনু

ঘুষ দাবির অভিযোগ: যশোর শিক্ষাবোর্ড সচিবের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা

যশোর শিক্ষাবোর্ড সচিব মোল্যা আমির হোসেনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে। পাঁচ লাখ টাকা ঘুষের দাবি পূরণ না করায় ৪১ লাখ টাকার প্রিন্টার গ্রহণ না করার অভিযোগে এ মামলা হয়েছে। মামলাটি করেছেন শহরের অম্বিকা বসু লেনের মাল্টি কম্পিউটার ল্যান্ডের মালিক এসএম আতাউর রহমান। গত পহেলা ডিসেম্বর যশোরের সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে দুর্নীতি দমন আইনের ৫(২) ধারায় মামলাটি করেছেন তিনি।
মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, যশোর শিক্ষাবোর্ডের জন্যে ছয়টি হাইস্পিড লেজার প্রিন্টার কেনার জন্যে পত্রিকায় টেন্ডার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। একাধিকবার টেন্ডারে অংশ নিয়ে বাদী সর্বনিম্ন দরদাতা নির্বাচিত হন। এরপর গত ২ জুলাই টেকনিক্যাল ও টেন্ডার মূল্যায়ন কমিটি ২ আগস্টের মধ্যে মালামাল সরবরাহের জন্যে নির্দেশ দেয়। বিদেশ থেকে কম্পিউটার আমদানিতে বিলম্ব হওয়ায় বাদী শিক্ষাবোর্ড সচিবের কাছে ৬১ দিন সময় বৃদ্ধির আবেদন করেন। তখন তিনি পাঁচ লাখ টাকা ঘুষ দাবি করেন বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে। দাবিকৃত ঘুষের টাকা না দিলে কার্যাদেশ বাতিল করা হবে বলেও বাদীকে সাফ জানিয়ে দেন সচিব।
কার্যাদেশ বাতিলে আপত্তি জানিয়ে বাদী সচিবের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, টেন্ডারের শর্তানুযায়ী মালামাল সরবরাহে বিলম্ব হলে প্রতিদিন মূল বিল থেকে সর্বোচ্চ ১০ শতাংশ পর্যন্ত কর্তন করা হবে। সেই অনুযায়ী কার্যাদেশ বহাল রাখার দাবি জানানো হয়। সর্বশেষ, গত ২২ নভেম্বর দেওয়ানী আদালতের জিপির কার্যালয়ে উভয়পক্ষের শালিশে বসার সিদ্ধান্ত হয়। শালিশে বসেও শিক্ষাবোর্ড সচিব অনৈতিকভাবে পাঁচ লাখ টাকার দাবিতে অটল থাকেন। কার্যাদেশ বাতিল করলে বাদীর ৪১ লাখ ৯১ হাজার টাকার ক্ষতি হবে বলেও জানান বাদী। তারপরও কর্ণপাত না করায় শেষ পর্যন্ত মামলা করতে বাধ্য হয়েছেন বলে জানান তিনি।