মেইন ম্যেনু

ঘূর্ণিঝড় রোয়ানু’র প্রভাবে দেখা দিয়েছে ভয়াবহ নদী ভাঙন

প্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর প্রভাবে সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলায় ভয়াবহ ভাঙন দেখা দিয়েছে। আইলা বিধ্বস্ত দ্বীপ ইউনিয়ন গাবুরায় দুর্যোগপূর্ণ মৌসুমের শুরুতেই পাউবো বেড়িবাঁধে এই ভাঙন শুরু হয়েছে। পাউবো কর্তৃপক্ষের অব্যবস্থাপনার জন্য বারবার নদী ভাঙন সৃষ্টি হচ্ছে বলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা অভিযোগ করেছেন।

গাবুরা ইউপি চেয়ারম্যান আলী আজম টিটো জানান, ধেয়ে আসা ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর প্রভাবে গত দুইদিনের টানা বর্ষণে ইউনিয়নের ৯ নং সোরা ক্লোজার সংলগ্ন স্থানে ৩শ ফুট ব্যাপী খোরপেটুয়া নদীতে ধসে পড়েছে। যেকোনো মুহূর্তে ক্ষতিগ্রস্ত স্থান নদীতে বিলীন হয়ে পুরো ইউনিয়ন তলিয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তিনি।

তিনি জরুরি ভিত্তিতে কাজ শুরু করার জন্য পাউবো কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানিয়েছেন। ১৫ নং পোল্ডারের দায়িত্বরত পাউবো এসও নিখিল রঞ্জন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, সরকারিভাবে অর্থ বরাদ্দ না থাকায় কাজ শুরু করা সম্ভব হচ্ছে না।

তিনি আরো জানান, শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে স্থানীয় গাবুরা, পদ্মপুকুর, বুড়িগোয়ালিনী, মুন্সিগঞ্জসহ উপকূলীয় ইউনিয়নগুলোর উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া সকল নদীতে প্রবল জোয়ার সৃষ্টি হয়। দুপুর ১টা নাগাদ জোয়ারের পানি কিছুটা স্বাভাবিক হয়। এরমধ্যে শুক্রবার থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত একটানা বৃষ্টি হয়েছে। এতে করে জনজীবনে নেমে এসেছে চরম ভোগান্তি।

উপকূলের সব কয়টি ইউনিয়নের আশ্রয় কেন্দ্রগুলো খুলে দেয়া হয়েছে। সেখানে আশ্রয় নিয়েছেন কয়েক হাজার পরিবার। গাবুরা, পদ্মপুকুর ও বুড়িগোয়ালীনী ইউনিয়নের ২৭টি আশ্রয় কেন্দ্রের হাজার হাজার পরিবার ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর আতঙ্কে আশ্রয় নিয়েছে বলে জানা গেছে।