মেইন ম্যেনু

চট্রগ্রামে ছাত্রলীগ নেতা গ্রেপ্তার : প্রতিবাদ মুখর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম

সাফাত জামিল শুভ, চবি প্রতিনিধি : চলমান ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ব্যালট ছিনতাইয়ের অভিযোগে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনিকে দুই বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। জানা যায়, গত শনিবার দুপুরে হাটহাজারী উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়ন থেকে নির্বাচনে দায়িত্বরত জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হারুনুর রশিদের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে রনিসহ নয়জনকে গ্রেপ্তার করে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।

এ সময় রনির কাছে অত্যাধুনিক নাইন এমএম পিস্তল,১৫ রাউন্ড গুলি ও ২৬ হাজার টাকা পাওয়া যায়।পরে ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন বিধিমালা ২০১৬ এর দুটি ধারায় নুরুল আজিম রনিকে দুই বছর কারাদণ্ড দেন।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন নগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনিকে আটকের বিষয়ে বলেন,”আটককৃত অস্ত্রটি বৈধ না অবৈধ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। যদি অস্ত্রটি বৈধ হয়, তাহলে জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে লাইসেন্স বাতিল করা হবে। তিনি আরও বলেন, ভোটকেন্দ্রে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ছাড়া কেউ অস্ত্র বহনের অনুমতি পায় না। নির্বাচনে অস্ত্র প্রদর্শনের অপরাধে ফৌজদারি আইনে পুলিশ তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারে।”

চট্রগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগ নেতা কে গ্রেপ্তার করায় প্রতিবাদ মুখর হয়ে উঠেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। ছাত্রলীগের তৃণমূল পর্যায় থেকে কেন্দ্রীয় নেতা সহ অনেকেই রনির গ্রেপ্তারের প্রতিবাদ করছেন।

ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম তার ফেইসবুকে লিখেন, “সিনিয়র নেতারা করবে গ্রুপিং আর ছাত্রলীগ হবে বলির পাঠা। আসেন আমরা চুড়ি পড়ে বসে থাকি। তিনি আরেক স্টেটাসে বলেন, চট্রগ্রামের কলেজ গুলোকে আবার শিবিরের কাছে ফিরিয়ে দিতেই কি এই গ্রেপ্তার?”

কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মোবারক হোসেন ফেসবুকে লেখেন,”সিনিয়রদের বলছি নোংরামি বন্ধ করান অথবা আমাদের দল থেকে বহিষ্কার করে বের করে দেন।”

এদিকে মহানগরের এ নেতাকে গ্রেপ্তারকে কেন্দ্র করে মুরাদপুর ও ষোলশহর ২নং গেইট মোড়ে ছাত্রলীগ কর্মীরা ব্যারিকেড সৃষ্টি করায় রাত ১০ টা থেকে ১১ টা পযন্ত এশিয়ান হাইওয়েতে যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে।

উল্লেখ্য চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রণি চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর অনুসারী বলে জানা যায়।