মেইন ম্যেনু

চলে গেলেন অভিনেত্রী সাধনা শিবদাসানি

ভারতীয় চলচ্চিত্রের ৬০ দশকের সেরা আবেদনময়ী অভিনেত্রীদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন সাধনা শিবদাসানি। সত্তুরের দশক পর্যন্ত তিনি বলিউডের প্রচুর ছবিতে অভিনয় করেন তিনি। একসময়ের স্টাইল আইকন হিসাবে খ্যাতি পাওয়া এই অভিনেত্রী মুম্বাইয়ের হিন্দুজা হাসপাতালে গতকাল সকালে ৭৪ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।

গত বছর টিউমারের সমস্যার কারণে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি । তারপর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেও এ বছর তাঁর ক্যানসার ধরা পড়ে। ১৯৪১ সালের ২ সেপ্টেম্বর অবিভক্ত ভারতের করাচি শহরে জন্মগ্রহণ করেছিলেন সাধনা। এই শিল্পীর মৃত্যুতে শোকাহত বলিউড।

মাত্র ১৫ বছর বয়সে ছবিতে অভিনয় করার প্রস্তাব আসে সাধনার কাছে। ১৯৫৫ সালে রাজ কাপুরের ছবি ‘শ্রী ৪২০’ ছবিতে কোরাস গার্লের ভূমিকায় আত্মপ্রকাশ ঘটে তাঁর। নিজের ক্যারিয়ার জীবনে তিনি প্রচুর ছবি উপহার দিয়েছেন দর্শককে। আসলি নকলি, মেরে মেহবুব, রাজকুমার, ও কন থি, মেরা সায়া-র মতো অনেক বিখ্যাত ছবির নায়িকা ছিলেন তিনি। কাজ করেছেন বিমল রায় থেকে যশ চোপড়ার মতো অনেক খ্যাতিমান পরিচালকের সঙ্গে। প্রায় ৩৫টি ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি।

শুধু অভিনেত্রী হিসেবে নয়, ফ্যাশন কুইন হিসেবেও বলিউডে নিজের জায়গা বানিয়ে নিয়েছিলেন সাধনা। সুনীল দত্তর সঙ্গে জুটিতে তাঁর মেরা সায়া ছবিটি তখনকার বলিউডে বেশ সাড়া ফেলে দেয়। ‘ও কন থি’ ও ‘ওয়াক্ত’ ছবির জন্য ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনীত হন সাধনা। ২০০২ সালে ‘আইআইএফএ’তে লাইফটাইম অ্যাচিভমেন্ট সম্মাননা পান তিনি।

এক সময়ের সহকর্মী আশা পারেখ, হেলেন এবং ওয়াহিদা রেহমানের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল সাধনার। তাদের ছাড়া কারও সঙ্গে কথা বলতেন না তিনি। এমনকী নিজের বোন অভিনেত্রী ববিতার সঙ্গেও না। এই স্বেচ্ছা অন্তরালে চলে যাওয়ার ব্যাপারে সাধনার সঙ্গে সুচিত্রা সেনের মিল পান অনেকে। ভারতের জনপ্রিয় গায়িকা আশা ভোঁসলের একটা বাড়িতে অ্যাপার্টমেন্ট ভাড়া করে থাকতেন সাধনা। সম্প্রতি তাই নিয়ে মামলা-মোকদ্দমাও হয়।

সাধনার পুরনো ঘনিষ্ঠ বান্ধবী অভিনেত্রী তাবাসসুম এই প্রখ্যাত অভিনেত্রীর মৃত্যুতে শোকাহত। তিনি মিডিয়াকে জানান, মৃত্যুর শেষদিন পর্যন্ত চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রির কাছ থেকে কোন আর্থিক সহায়তা না পেয়ে কেমন কষ্টে দিন কাটিয়েছেন সাধনা।

তাবাসসুম বলেন, তিনি খুবই অসুখী এবং অসুস্থ থাকতেন। সিনেমা জগতের কেউ তার কথা মনে রাখেনি। পুরো বলিউড সারা বছরই নানারকম উৎসবে মেতে থাকে। অথচ এতো বছরেও কেউ একবারও এই অভিনেত্রীকে খোঁজ করেনি।

তাবাসসুম আরো জানান, চলচ্চিত্রের অনেকের কাছে সাহায্য চেয়েছিলেন অভিনেত্রী সাধনা। নিজের স্বাস্থের অবনতির কারণে মামলা মোকদ্দমা চালাতে পারছিলেন না তিনি। সেসময় কেউ এগিয়ে আসেনি। তার কোন আত্মীয় ছিল না। একসময় তিনি ভক্তদের কাছেও সাহায্য চেয়েছিলেন। তখন তার পাশে কাউকে পাওয়া যায়নি।

গতকাল অভিনেত্রী সাধনার শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে বলিউডের প্রবীনশিল্পী সেলিম খান, হেলেন, আশা পারেখ, আন্নু কাপুর, পুনমসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।