মেইন ম্যেনু

‘চলে যাচ্ছি বলে লাশ হয়ে ফিরলো’

ব্যুরো প্রধান, রাজশাহী : ‘তখন দুপুর গড়িয়ে প্রায় বিকেল চলে যাচ্ছি বলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে গেলো লোকটি। দুপুরে একটু কিছু মুখে দেই নি। কত বার খেয়ে যেতে বল্লাম, কথা শুনলো না। এসে খাব বলে বেরিয়ে গেলো বাড়ি থেকে। লাশ হয়ে ফিরলো বাড়িতে। ’

গত শনিবার ঘটে যাওয়া বাগমারায় আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপ ও পুলিশের সংঘর্ষে নিহত আওয়ামী লীগের কর্মী সিদ্দিকুর রহমান সিদ্দিক স্ত্রী মৌসুমি বেগম এ কথা বলে বিলাপ করছিলেন।

‘আমি তাকে কেনো যেতে দিলাম। তাকে আটকে রাখলে হয় তো আমাদের ছেড়ে যেতো না। আমি আর আমার মেয়ে মুশফিকা কিভাবে থাকবো। আমার দুই বছরের মেয়েটি বাবা ছাড়া কিছুই বুঝতো না। সারা ক্ষন বাবা বলে মেতে থাকে। মেয়েটি বাবা পাগল। আমি তাকে কি বলে সান্তনা দিব, যে তার বাবা আর আসবে না। ’

‘এই ভোট আমার জীবনের সব কিছু কেড়ে নিলো। সুখ-শান্তি, আশা-ভরসা সব স্বপ্ন যেন এক মুহুর্তেই সব শেষ হয়ে গেলো।’ গতকাল রোববার এভাবে বিলাপ করছিলেন নিহত সিদ্দিকুর রহমান সিদ্দিক স্ত্রী মৌসুমি বেগম।

অন্যদিকে, রোববার দুপুরে সিদ্দিক ও রমজান আলী রঞ্জুর পরিবারের লোকজন অহাজারি করছিলো। এসময় তাদের দু’জনের পরিবারের লোকজনকে ঘিরে এলাকাবাসী। এঘটনায় শুধু দুই পরিবারই নয় পুরো এলাকায় নেমেছে শোকের ছায়া। এদিকে, দুপুরে আওয়ামী লীগের কর্মী সিদ্দিকুর রহমান সিদ্দিক ও রমজান আলী রঞ্জুর ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়।

উল্লেখ্য, গত শনিবার বাগমারার হাটগাঙ্গোপাড়ায় আওয়ামী লীগের দু’পক্ষ ও পুলিশের মধ্যে ত্রিমুখী সংঘর্ষে সিদ্দিকুর রহমান সিদ্দিক ও রমজান আলী রঞ্জু নিহত হন। এ ঘটনায় আরো অর্ধশতাধিক ব্যক্তি অহত হয়েছেন।