মেইন ম্যেনু

চশমা ব্যবহারে কাজে আসবে এই ১১ টিপস!

চশমার অনেক উপকারিতা আছে নিঃসন্দেহে। তথাপি যাদের নিয়মিত চশমা পড়তে হয় তাঁদের কাছে বিষয়টা কতটা বিরক্তিকর, তা যারা চশমা পরেন না তাঁরা কখনোই বুঝতে পারবেন না। হুট করে হারিয়ে যাওয়া নাকের ওপর থেকে চশমা পিছলে যাওয়া, হাতল ঢিলে হয়ে যাওয়া ইত্যাদি কত রকমের ঝামেলাই না হয় চশমা ব্যবহারে। চশমার এই রকম কিছু যন্ত্রণাকে কিছুটা কমানোর জন্য কয়েকটি কৌশল জেনে নিই আসুন।

১। অনেক সময় এমন হয় যে, চশমার বক্সটি খুঁজে পাওয়া যায়না। চশমার বক্সটির পেছনের দিকে সামান্য অন্ধকারে জ্বলজ্বল করা গ্লু লাগিয়ে রাখুন, এতে অন্ধকারেও বক্সটি খুঁজে পাবেন।

২। সূক্ষ্ম সূতার কাপড় বা নরম কাপড় দিয়ে চশমার গ্লাস পরিষ্কার করুন। এজন্য হাতের কাছে কাপড় রাখুন।

৩। চশমা হারিয়ে গেলে জরুরী কোন কাজ করার জন্য মোবাইলের ক্যামেরা দিয়ে দেখুন, অনেকটা স্পষ্ট দেখতে পাবেন।

৪। সাবান পানি দিয়ে চশমা পরিষ্কার করুন। কখনোই অ্যালকোহল, এমোনিয়া, বা ভিনেগার আছে এমন ক্লিনার দিয়ে পরিষ্কার করবেননা। এতে গ্লাসের কোটিং নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

৫। যাদের চশমার পাওয়ার অনেক বেশি তাঁরা মোটা হাতলের ফ্রেম ব্যবহার করুন।

৬। চশমা পড়ে ছবি তুললে ছবিতে উজ্জ্বল আলো দেখা যায় যা ছবিটাকে নষ্ট করে দেয়। এটা যাতে না হয় তার জন্য ছবি তোলার সময় চশমার হাতলটা একটু উপরে উঠিয়ে ধরুন।

৭। যারা কম্পিউটারে অনেক বেশি সময় ধরে কাজ করেন তারা কম্পিউটার গ্লাস ব্যবহার করলে উপকার পাবেন।

৮। যদি চশমার স্ক্রু ঢিলা হয়ে যায় তাহলে একটু নেইলপলিশ লাগিয়ে নিলে স্ক্রু পড়ে যাবেনা।

৯। যারা চশমা পরেন তাঁরা কার্লি মাশকারা ব্যবহার না করে ভলিউমাইজিং মাশকারা ব্যবহার করুন।

১০। নাকের উপরে প্রাইমার লাগিয়ে নিলে চশমারা স্লিপারি ভাব কমবে। অনেকক্ষণ থাকার জন্য এর উপরে পাউডার লাগিয়ে স্প্রে করে নিন।

১১। চোখের ফ্রেমের দাগ দূর করার জন্য ইয়েলো টোনের কন্সিলার ব্যবহার করুন।