মেইন ম্যেনু

চাকরিতে প্রবেশের বয়স ফের বাড়ানোর দাবি সংসদে

অন্যান্য দেশের সঙ্গে মিলিয়ে বাংলাদেশেও চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩০ থেকে বাড়িয়ে ৩৫ করার দাবি উঠেছে জাতীয় সংসদে। মঙ্গলবার সংসদে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে হাজী মো. সেলিম (ঢাকা-৭) এই দাবি জানিয়ে এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

মঙ্গলবার মাগরিবের নামাজের বিরতির পর অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে হাজী সেলিম বলেন, জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন ফোন করে ‘জাতিসংঘ ইউনাইটেড নেশনস হাই লেভেল প্যানেল অন ওয়াটার’ প্যানেলে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে সদস্য হিসেবে রাখার প্রস্তাব করেন। প্রধানমন্ত্রী এই প্রস্তাবে সম্মতি জানান। এ খবরে দেশে আনন্দের ঢেউ বয়ে যায়। এই ঢেউয়ের মধ্যে সরকার প্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে কিছু চাই।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী, আমরা দেশের বেকার শিক্ষিতদের জন্য কান্নাকাটি করছি। সরকারি চাকরিতে ঢোকার বয়সসীমা ৩০ থেকে বাড়িয়ে ৩৫ করার দাবি জানাচ্ছি। এই দাবি যুক্তিসঙ্গত। এশিয়ার বিভিন্ন দেশে বিশেষ ক্ষেত্রে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৪০ রয়েছে।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে ৪০ বছর, শ্রীলংকায় ৪৫ বছর, ইন্দোনেশিয়ায় ৪৫ বছর, ইতালিতে ৩৫ বছর, ফ্রান্সে ৪০ বছর, যুক্তিরাষ্ট্রে ৫৯ বছর, কানাডা ও সুইডেন ৪৭ বছর, কাতার ও নরওয়ে ৩৫ বছর, এঙ্গোলা ৪৫ বছর, তাইওয়ানে ৩৫ বছর রয়েছে তিনি উল্লেখ করেন।

হজী সেলিম বলেন, বর্তমানে সেশনজটসহ বিভিন্ন কারণে চাকরির আবেদনের বয়স শেষ হয়ে যায়। ২০০৮ সালে শুধুমাত্র মাস্টার ডিগ্রিতে সেশনজট ছিল দুই বছরের বেশি। ২০০৯ ও ২০১০ সালে তিন বছরের বেশি।