মেইন ম্যেনু

চাকরি পাওয়ার আধঘণ্টার মধ্যেই ছাঁটাই তরুণী! কারণ?

ক্লেয়ার শেফার্ড চাকরি পেয়েছিলেন একটি লজিস্টিক্স সংস্থায়। ইন্টারভিউ হয়েছিল ফোনে। আর সেই ইন্টারভিউ এতই ভাল হয়েছিল যে, তখনই জানিয়ে দেওয়া হয়, ‘‘আপনি চাকরি পেয়ে গিয়েছেন। আগামী সপ্তাহেই যোগ দিন।’’

এর পরেই চলে আসে ই-মেল। নিয়োগপত্রের ‘শর্তাবলি’ অংশে জানিয়ে দেওয়া হয় ড্রেস কোড। আর সেখানেই ঘটে বিপত্তি। ই-মেলে লেখা ছিল, ‘‘আপনার শরীরে যদি কোনও ট্যাটু থাকে, তা হলে সেগুলি অবশ্যই ঢেকে পোশাক পরতে হবে। না হলে গ্রাহকরা ক্ষুণ্ণ হতে পারেন।’’

পাল্টা মেল পাঠান ক্লেয়ার। বলেন, ‘‘আমার হাতে ট্যাটু রয়েছে। আশা করি, সেটা আমার চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে অন্তরায় হবে না।’’ প্রায় সঙ্গে সঙ্গে জবাব আগে, ‘‘দুঃখিত। আপনাকে আমরা নিয়োগ করতে পারলাম না।’’

ফেসবুকে ক্লেয়ার লিখেছেন, ‘‘এর আগে আমি ম্যানেজেরিয়াল পদে বিভিন্ন সংস্থায় কাজ করেছি। কিন্তু আমাকে কখনও এই ধরনের সমস্যায় পড়তে হয়নি। এই সংস্থার মনোভাব আমাকে বিস্মিত করল।’’

ক্লেয়ারের এই পোস্ট হাজারের মানুষ শেয়ার করেন। শোরগোল পড়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়। এর পরে সেই সংস্থা থেকে ফের ই-মেল আসে ক্লেয়ারের কাছে। তিনি বলেছেন, ‘‘ওঁরা আমাকে জানান যে, আমার ট্যাটু দেখে পরে ওঁদের আপত্তিজনক বলে মনে হয়নি। ওঁরা আমাকে চাকরি অফার করেন। কিন্তু আমার মনে হয়, এই পোস্ট যদি এভাবে ভাইরাল না-হত, তা হলে ওঁরা আমাকে ফের অফার দিতেন না।’’

এর পরেও চাকরিটা নেবেন? ক্লেয়ারের জবাব, ‘‘ভাবছি।’’