মেইন ম্যেনু

চাকরি পাবে না যুদ্ধাপরাধীর সন্তানরা, হারাবে সম্পদও

অচিরেই যুদ্ধাপরাধীদের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করা হবে এবং তাদের পরিবারের কেউ সরকারি চাকরি পাবেন না বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

বৃহস্পতিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুরের কটূক্তিকারী ও মুক্তিযোদ্ধের ইতিহাস বিকৃতিকারীদের বিচারের দাবিতে এ সমাবেশের আয়োজন করে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ফাউন্ডেশন।

মন্ত্রী বলেন, ‘যুদ্ধাপরাধী দল হিসেবে জামায়াতকে অচিরেই নিষিদ্ধ করা হবে এবং তাদের ভোটাধিকার থাকবে না। এ দেশে সাধারণ নাগরিক হিসেবে শুধু বসবাস করতে পারবে তারা।’

খালেদা জিয়াকে জামায়াতের অঘোষিত আমির আখ্যা দিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘তিনি (খালেদা) প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন যে বানী দিয়েছেন তাতে লেখা ছিলো ৩০ লাখ শহীদ আর ২ লাখ মা বোনের সম্ভ্রমহানির বিনিময়ে অর্জিত হয়েছে স্বাধীনতা। কিন্তু তাদের প্রভু পাকিস্তান যখন মুক্তিযুদ্ধে তাদের অপকর্ম অস্বীকার করছে ঠিক সেই মুহূর্তে খালেদাও শহীদদের সংখ্যা নিয়ে কটাক্ষ করছে।’

জাতীয় সংসদে আইন পাশ করে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কটাক্ষকারীদের বিরুদ্ধে অচিরেই ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে আশা করেন তিনি।

সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি লায়ন মো. সাখাওয়াত হোসেনের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম, আওয়ামী লীগের উপ কমিটির সহ সম্পাদক এম এ করিম প্রমুখ।