মেইন ম্যেনু

চুল রিবন্ডিং করেছেন? মেনে চলুন ১১টি নিয়ম

চুল রিবন্ডিং করানোর ফ্যাশনটি পুরাতন হয়ে গেলেও এখনও এটি বেশ জনপ্রিয় তরুণীদের কাছে। সুন্দর, সিল্কি ঝলমলে চুল সব মেয়েদের পছন্দ, কিন্তু প্রাকৃতিকভাবে কিছু কিছু মানুষের চুল কোঁকড়া হয়ে থাকে। এই কোঁকড়া চুলগুলো বিশেষভাবে স্ট্রেইট করে নেওয়াকে রিবন্ডিং বলা হয়। স্ট্রেইনার দিয়ে চুল স্ট্রেইট করাটা খুব সাময়িক। আর এটি চুলের ক্ষতি করে থাকে। স্ট্রেইনার দিয়ে চুল স্ট্রেইট করার চেয়ে রিবন্ডিং করা বেশ নিরাপদ। কিন্তু চুল রিবন্ডিং পর চুলের একটু বেশি যত্ন নিতে হয়। যত্ন না নেওয়ার কারণে রিবন্ডিং এর পর চুল অনেক বেশি পড়ে যায়। জেনে নিন রিবন্ডিং করার পর মেনে চলতে হবে যেসব নিয়ম-

১। চুল রিবন্ডিং করার ৩ দিন পর্যন্ত চুল শ্যাম্পু অথবা চুল ভেজাবেন না। এমনকি এইসময় কোন প্যাক ব্যবহার করবেন না।

২। রিবন্ডিং এর ব্যবহৃত পণ্যগুলো কোন ব্রান্ডের তা ভাল করে দেখে নিন। সম্ভব হলে পণ্যে ব্যবহৃত উপাদানগুলো একবার দেখে নিন।

৩। রোদ, বৃষ্টি, ঠান্ডা বাতাস থেকে চুলকে রক্ষা রাখুন। ছাতা, স্কার্ফ অথবা হ্যাট ব্যবহার করুন।

৪। হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

৫। চুলে যেকোন প্রকার রাসায়নিক পদার্থ যেমন হেয়ার কালার, হাইলাইটিং অথবা অন্য কোন রাসায়নিক পদার্থ দুই মাসের আগে ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

৬। চুল রিবন্ডিং করার পর কমপক্ষে দুই সপ্তাহ সাঁতার কাটা থেকে বিরত থাকুন। সুইমিং পুলের ক্লোরিন চুলকে রুক্ষ করা তুলতে পারে।

৭। চুল শ্যাম্পু করার পর অবশ্যই চুলে কন্ডিশনার লাগাবেন।

৮। সপ্তাহে অন্তত ৩ দিন চুলে তেল লাগাবেন। এতে রিবন্ডিং এর হিটের কারণে ক্ষতিগ্রস্থ চুল ঠিক হবে।

৯। চওড়া দাঁতের চিরুনি চুল আঁচড়ানোর জন্য ব্যবহার করুন।

১০। চুল ধোয়ার জন্য ঠান্ডা পানি ব্যবহার করুন। চুল ময়লা হলে শ্যাম্পু করুন।

১১। চুল রিবন্ডিং উপযোগী শ্যাম্পু ব্যবহার করুন। নিয়মিত হেয়ার সিরাম ব্যবহার করুন। এটি চুল ভেঙ্গে যাওয়া রোধ করবে।
রিবন্ডিং চুল সঠিক নিয়মে যত্ন করা গেলে দীর্ঘদিন পর্যন্ত চুল স্ট্রেইট থাকে।