মেইন ম্যেনু

চেনেন তো গ্রামের এই সহজ-সরল ছেলেটিকে?

বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জেলা সাতক্ষীরার এক কৃষক পরিবারে জন্ম তার। শৈশবটা কেটেছে এ গ্রাম ও গ্রামে ক্রিকেট খেলে। পড়াশুনাটা অনেকটা অপছন্দের যতটা প্রিয় ক্রিকেট ব্যাট। তাই বাবা-মার কঞ্চির পিটুনি প্রায়ই আঘাত হানতো তার পিঠে। তবে মেজো আঁচ করতে পেরেছিলেন ছোট ভাইয়ের ভেতরের লুকানো প্রতিভা। তাই তো মাঘের হাটু কাঁপা শীতের সকালেও কয়েক মাইল পথ পাড়ি দিয়ে ভাইকে নিয়ে যেতেন প্যাকটিসে।

আসলেই, রাখে আল্লাহ মারে কে অথবা বিধির লিখন না যায় খণ্ডন। তা না হলে ভাবুন যে ছেলে প্রাইমারির গণ্ডি পার করতে পারেনি। অথচ সে আজ বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের পতাকাকে গর্বের সাথে চেনাচ্ছেন। হ্যা, বলছি বাংলাদেশ ক্রিকেটের তরুণ উদীয়মান কাটার মাস্টার মুস্তাফিজুর রহমানের কথা। হয়তো বিশ্বের কেউ ভাবতেই পারেনি সাতক্ষীরার এক পুচকে বালকের দখলে থাকবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের বোলিং সেক্টর।

ঘরোয়া ক্রিকেটে দূর্দান্ত ক্রীড়াশৈলী প্র্রদর্শনের সুবাধে ২০১৫ সালের ২৪ এপ্রিল সফরকারী পাকিস্তানের বিপক্ষে টি২০ ম্যাচে অভিষেক হয় তার। এর দুইমাস পর ১৯ জুন ক্রিকেট পরাশক্তি ভারত ক্রিকেট দলের বিপক্ষে একদিনের আন্তর্জাতিকে অভিষেক ঘটে মুস্তাফিজের। অভিষেকেই বাজিমাত। ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের ব্যাটিং লাইন আফ চুরমার করে তুলে নেন মূল্যবান ৫ উইকেট। একই সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে ৪৩ রানের বিনিময়ে ৬ উইকেট নিয়ে হোন ম্যাচ সেরা। জীবনের প্রথম দুই ম্যাচে ১১ উইকেট নিয়ে ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম বোলার হিসেবে তিনি বিশ্বরেকর্ড গড়েন দেশ সেরা এই কাটার পেসার৷

এক কথায় বাংলাদেশ ক্রিকেটের বিস্ময়কর বালক মুস্তাফিজুর রহমান। মুস্তাফিজ মানেই নতুন ঘটনা, নতুন কোন ইতিহাস। গেল বছরে ২২ বছর বয়সী সাতক্ষীরার এই যুবকের ভেলকিতে বিশ্বের বাঘা বাঘা দেশ রীতিমত লজ্জায় পড়েছিল বাংলাদেশের কাছে। পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) লাহোর কালার্ন্ডাসে ডাক পাওয়া, ইলিংশ কাউন্টি লিগে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে নাম লেখানো এবং ইন্ডিয়া ঘরোয়া লিগের সবচেয়ে জনপ্রিয় আসর ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে ( আইপিএল) বিভিন্ন ফ্রাইঞ্চাইজি বাংলাদেশের বাংলাদেশের এই বিস্ময়কর বালককে দলে বেড়াতে মরিয়া হওয়ার ঘটনায় ক্রিকেট পাড়ায় চলছে হই হই রই রই।

তবে সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় মুস্তাফিজের ক্রিকেট ক্যারিয়ার শুরুর আগে একটি ছবি পোস্ট করে। সেখানে সবাই তাকে সহজ-সরল আখ্যা দিয়ে ক্যাপশন দেন।
প্রসঙ্গত, টি২০ বিশ্বকাপে অংশ নিতে বর্তমানে দলের সঙ্গে ভারতে অবস্থান করছেন মুস্তাফিজ। বিশ্বসেরাদের আসরটিতেও চলছে তার ভেলকি। সুপার টেন পর্বে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচের ন্যায় তৃতীয় ম্যাচে বল হাতে দারুণ চমক দেখান তিনি।