মেইন ম্যেনু

চোরে নিল বাচ্চা, ঢামেকে কাঁদছেন গর্ভধারিণী মা

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল থেকে অভিনব কায়দায় খাদিজা নামের তিন মাসের এক শিশু চুরি হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে কোলে নেয়ার কথা বলে শিশুটিকে অজ্ঞাত পরিচয় এক নারী নিয়ে যায়। বাচ্চা চুরি যাওয়ায় হাউমাউ করে কাঁদছেন গর্ভধারিণী এক মা।

ডিএমসি পুলিশ ফাঁড়ির এসআই বাচ্চু মিয়া বলেন, চুরির ঘটনা শোনার পর শাহবাগ থানাকে অবহিত করা হয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকেও জানানো হবে বলে জানান তিনি।

শিশুটির মা নাছিমা এবং বাবা বাহাদুর ঢালী। তাদের গ্রামের বাড়ি মাদারীপুরের শিবচর থানার কাঁঠালবাড়ি ইউনিয়নে। বাহাদুর ঢালী দিনমজুরের কাজ করেন।

জানা গেছে, শিশুটির বাবা বাহাদুর ঢালী প্রায় আড়াই মাস ধরে ব্রেন টিউমারের কারণে ডিএমসির নিউরোসার্জারি বিভাগে ভর্তি রয়েছেন। সঙ্গে স্ত্রী নাসিমা ও শিশু কন্যা স্বর্ণা (১০) এবং খাদিজা (৩ মাস) থাকতো।

শিশু খাদিজা চুরি হয়ে যাওয়ার পর হাউমাউ করে কাঁদছেন মা নাসিমা। তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার আনুমানিক দুপুর ২টার দিকে এক অপরিচিত মহিলা তার কাছে জানতে চান এখানে গাইনি বিভাগ কোথায়? আমি তাকে ভালো মনে করে এগিয়ে গিয়ে গাইনি বিভাগ দেখিয়ে দিই। এরই মধ্যে ওই অপিরিচিত মহিলা জানতে চান আমার সন্তান ক’জন। আমি তাকে বলি- আমার তিন কন্যা। একজন বাড়িতে এবং বাকি দুজন আমার সঙ্গে হাসপাতালে আছে।

তিনি বলেন, রাতভর স্বামীর পাশে থাকায় ক্লান্ত ছিলাম। বেলা তিনটার দিকে আমার ঘুম পায়। এ সময় মেয়ে স্বর্ণা ও খাদিজা পাশেই ছিল। কিছুক্ষণ পর ওই মহিলা আবার ফিরে এসে স্বর্ণাকে একটা জুস কিনে দেয়। এরপর খাদিজার জন্য জামা কিনে দেয়ার কথা বলে স্বর্ণা ও খাদিজাকে নিয়ে বাইরে যেতে বলেন।

নাসিমা বলেন, তখনও আমি ঘুমে টলছিলাম। পরে খাদিজাকে নিয়ে স্বর্ণা বাইরে বের হয়। একপর্যায়ে ওই মহিলা খাদিজাকে নিজের কাছে রেখে স্বর্ণাকে আমার কাছে পাঠায়। পরে আমি দ্রুত রাস্তায় এসে ওই মহিলা ও খাদিজাকে আর খুঁজে পাইনি।
পরে পুলিশের কাছে ঘটনার বিস্তারিত বর্ণনা করেন তিনি।