মেইন ম্যেনু

ছাত্রলীগকে ব্যবহার করছেন শাবি ভিসি : ড. ইয়াসমিন

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকদের ওপর হামলার ঘটনায় ছাত্রলীগের কোন দোষ নেই। তাদের প্রতি আমাদের কোন রাগ-ক্ষোভ নেই। তারা আমাদের ছাত্র। তাদেরকে আমাদের ওপর হামলার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে।

তাদের লেলিয়ে দিয়ে স্বার্থ হাসিলের চেষ্টা করছেন ভিসি। তিনি বারবার মিথ্যা কথা বলছেন। তাকে এবিশ্ববিদ্যালয় ছেড়ে চলে যেতে হবে। এর কোন বিকল্প নেই। মঙ্গলবার শাবিতে মৌন মিছিল চলাকালে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন প্রফেসর ড. জাফর ইকবালের স্ত্রী প্রফেসর ড. ইয়াসমিন হক।

মৌন মিছিল শেষে ভিসি ভবনের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশে শিক্ষকরা বলেন ভিসি ড. আমিনুল হক ভূইয়ার বিদায় ঘন্টা বেজে গেছে। তিনি ছাত্রদের সন্ত্রাসী কাজে লেলিয়ে দিয়েছেন। তার পেটুয়া বাহিনী দিয়ে জাতিকে লজ্জায় ফেলেছেন। তার কোন ক্ষমা নেই। তাকে এবিশ্ববিদ্যালয় ছেড়ে চলে যেতে হবে।

সমাবেশে শিক্ষক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. ফারুক উদ্দিনের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন প্রফেসর সৈয়দ সামসুল আলম, প্রফেসর মস্তাবুর রহমান, প্রফেসর হাসানুজ্জামান শ্যামল, মিরাজুল ইসলাম, আনোয়ারুল ইসলাম, মুহিবুল আলম প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা সরকারের কাছে দ্রুত ভিসির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান।

শিক্ষক নেতা ফারুক উদ্দিন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দকে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে সরকারের উদ্দেশ্যে বলেন, এই বঙ্গবন্ধুর ছাত্রসংগঠনকে যে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে এই রকম ন্যক্কারজনক কাজে লেলিয়ে দিয়েছেন, আগে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন। এই দুর্নীতিবাজ ভিসিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থে এখান থেকে সরিয়ে নিন।

অধ্যাপক হাসানুজ্জামান শ্যামল বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয়কে আমরা তিলে তিলে এতোদূর এনেছি। আর এই ভিসি বিশ্ববিদ্যালয়কে সবার সামনে ভ্রান্তভাবে তুলে ধরার চেষ্টায় লিপ্ত। আমাদের নিজেদের হাতেগড়া এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানকে আমরা কোনোভাবেই একটা ভ্রান্ত ভিসির হাতে তুলে দিতে পারি না।

মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ শিক্ষকবৃন্দের আহবায়ক অধ্যাপক সৈয়দ সামসুল আলম বলেন, ভিসি নাকি গত রোববারের ঘটনা মিডিয়ার মাধ্যমে তার পরের দিন জেনেছেন। ৩০ আগস্ট শিক্ষকদের ওপর হামলা করার সময় যারা তার পাশে দাঁড়িয়েছিলেন তাদেরকে নিয়ে তিনি একটা তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন।

তিনি আমাদের এই ডিজিটাল বিশ্ববিদ্যালয়টিকে এনালগের দিকে নিয়ে যাচ্ছেন। আমরা সত্যাগ্রহ আন্দোলন করছি। আমাদের কর্মসূচি পরীক্ষার আওতামুক্ত।

তিনি এসময় পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করেন। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে বুধবার সকাল ৯টা থেকে ১২টা পর্যন্ত অর্ধদিবস কর্মবিরতি, কালোব্যাজ ধারণ, র‌্যালি ও সমাবেশ। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত প্রতীকী অনশন ও কালোব্যাজ ধারণ এবং ওই দিন সমাবেশ করে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

মুহম্মদ জাফর ইকবাল সাংবাদিকদের বলেন, আগস্ট মাস এমনিতেই আমাদের জন্য বেদনাদায়ক। এই আগস্ট মাসে শিক্ষকদের গায়ে হাত তো এর চেয়ে কষ্টদায়ক কিছু হতে পারে না। ভিসি অভিযোগ করছেন শিক্ষকরা নাকি তাকে আক্রমণ করেছেন। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা এরকম না। যে শ্বেতপত্র প্রকাশ করা হয়েছে, তার প্রতিটা লাইন ধরে এগিয়ে যাক তারপর দেখা যাবে অভিযোগ সত্য কিনা।

উল্লেখ্য, রোববার শিক্ষকদের ওপর হামলার ঘটনায় শাবিতে মৌন মিছিল কর্মবিরতিসহ নানা কর্মসূচি পালন করছেন শিক্ষকরা।