মেইন ম্যেনু

ছাত্রীদের স্কুলে যাওয়া নিষেধ: মসজিদের মাইকে ঘোষণা

মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগরে এক স্কুলছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনায় ওই এলাকার চারটি গ্রামের মসজিদের মাইক থেকে ঘোষণা দিয়ে ছাত্রীদের স্কুলে যেতে নিষেধ করা হয়েছে।

উপজেলার রুসদী উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ওই ছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনায় সোমবার দুপুরে তার ভাই বাদী হয়ে শ্রীনগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ২১ শে ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টার দিকে ওই ছাত্রী স্কুলের অনুষ্ঠান শেষে বাড়ি ফেরার পথে বিবন্দী-তন্তর রাস্তার বাগবাড়ি এলাকায় আবদুল কাদির (২২) ও হিরু মৃধা (২৮) সহপাঠীদের সামনে থেকে ডেকে নিয়ে শ্লীলতাহানি করে।

ওই ছাত্রী বাড়িতে গিয়ে ঘটনাটি জানালে অভিবাবকরা বাগবাড়ি গ্রামে গিয়ে এলাকার মুরুব্বিদের কাছে বখাটেদের বিরুদ্ধে বিচার দাবি করে। ওই দিন সন্ধ্যায় সালিশ মীমাংসার একপর্যায়ে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া শুরু হয় ও সংঘর্ষ বেঁধে যায়। এতে যুবলীগ নেতা মিন্টু, রতন মিয়া, শরীফ, বাবুসহ অন্তত আটজন আহত হয়।

এর পরপরই রাত ১০টার দিকে ওই এলাকার পাচল দিয়া, বনগাও, বিবন্দী ও টুনিয়া মান্দ্র গ্রামের মসজিদের মাইক থেকে ঘোষণা দিয়ে ওইসব এলাকার ছাত্রীদেরকে রুসদী উচ্চ বিদ্যালয়ে যেতে নিষেধ করা হয়।

গ্রামগুলোর একাধিক অভিবাবক মোবাইলফোনে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. জাকির হোসেনকে তাদের উদ্বেগের বিষয়টি জানান।

সোমবার দুপুর ১২টার দিকে ওই ছাত্রীর ভাই বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য তপন মুখার্জীর কাছে লিখিত অভিযোগ দেন।

তাছাড়া সালিশ মীমাংসায় বিদ্যালয়ের অভিবাবক প্রতিনিধি ফারুক হাওলাদার ও আবু হোসেন উপস্থিত থাকলেও এ ব্যাপারে মো. জাকির হোসেন সোমবার সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের জানান, এ বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না।

শ্রীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাহিদুর রহমান লিখিত অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, তদন্ত করে বখাটেদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।