মেইন ম্যেনু

ছাত্র নয়, হলে কর্মী তুলতে না পেরে ভাঙচুর

সাধারণ ছাত্রদের বেশ কয়েকটি সিটে দলীয় কর্মীদের তুলে দেওয়ার চেষ্টায় আবাসিক শিক্ষকদের বাধার মুখে পড়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বিজয় একাত্তর হল শাখা ছাত্রলীগ। এ সময় তারা হল প্রাধ্যক্ষের রুমের জানালার কাচ ভাঙচুর করে।

সোমবার দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে হলের বিভিন্ন কক্ষে নিজেদের কর্মী তুলে দেন হল শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি ফকির রাসেল ও সাধারণ সম্পাদক নয়ন হাওলাদার। এ সময় সাধারণ শিক্ষার্থীরা হাউজ টিউটরকে বিষয়টি অবগত করে। খবর পেয়ে হাউজ টিউটররা ছাত্রলীগ কর্মীদের বুঝানোর চেষ্টা করেন। এ সময় ছাত্রলীগ কর্মীরা ক্ষেপে যান এবং এক পর্যায়ে শিক্ষকদের বাধার মুখে হল প্রাধ্যক্ষের রুমের জানালার কাচ ভেঙে দেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘হঠাৎ করে ছাত্রলীগ বিভিন্ন রুমে নিজেদের কর্মী তুলে দিতে যায়। একইভাবে আমাদের রুমেও আসে। আমরা রুমের ভেতর থেকে দরজা বন্ধ করে স্যারদের খবর দিই। কিন্তু তারা রুমে দরজা ধাক্কাধাক্কি শুরু করলে খুলতে বাধ্য হই। পরে হল প্রাধ্যক্ষ, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর, হাউজ টিউটর ও বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসান বিভিন্ন রুমে উঠিয়ে দেওয়া কর্মীদের ফেরত নিতে হল সভাপতি ফকির রাসেল ও সাধারণ সম্পাদক নয়ন হাওলাদারকে নির্দেশ দেন। পরে তারা কর্মী ফেরত নেন।’

পরের দিন পরীক্ষা খারাপ হতে পারে এমন আশঙ্কায় বেশ কয়েকজন সাধারণ ছাত্র হাউজ টিউটরদের সামনে কান্নাকাটি শুরু করেন। এক পর্যায়ে হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এ জে এম শফিউল আলম ভূঁইয়া ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসান এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এ জে এম শফিউল আলম ভূঁইয়া বলেন, ‘বিষয়টি অত্যন্ত খারাপ হয়েছে। যারা এমন পরিস্থিতি তৈরি করেছে তদন্ত সাপেক্ষে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসান বলেন, ‘প্রাধ্যক্ষের রুম ভাঙচুরের ঘটনায় ছাত্রলীগের কেউ জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’