মেইন ম্যেনু

ছিনতাইকারীকে অভিনব কৌশলে ধরে ফেললেন ৮১ বছরের বৃদ্ধা

৮১ বছর বয়সী বৃদ্ধা পুষ্পাবেন বুধবার সকাল ১০টায় বাড়ির পাশের এক মন্দিরে যাবেন বলে বের হন। মুম্বাইয়ের আম্বেদকর রোডের ল্যান্ডমার্ক টাওয়ারে তার ফ্যাট। যখনই তিনি অ্যাপার্টমেন্টের বাইরে বেরোন তার কাছে এগিয়ে আসে এক ব্যক্তি। নিজেকে পুলিশের অপরাধবিষয়ক বিভাগের কর্মকর্তা বলে পরিচয় দিয়ে বলে তারা সাদা পোশাকে এলাকা পর্যবেণ করে।

ওই ব্যক্তি পুষ্পাবেনকে জানায়, তিনি যে এলাকায় থাকেন, তা একেবারেই অনিরাপদ।

এ জন্য হাতে মূল্যবান সোনার চুড়ি পরে ঘুরে বেড়ানো মোটেই উচিত নয়। বয়সের ভারে শরীরে ভাটা পড়লেও, ভাটা পড়েনি বৃদ্ধার বুদ্ধিতে। তাই সোনার চুড়ি খুলে দেয়ার পরামর্শ শুনেই খটকা লাগে তার।

তিনি জানান, চুড়ি খুলবেন না তিনি। নিজের খেয়াল নিজেই রাখতে পারবেন। এরই মধ্যে তিনি ল্যক্ষ করেন কাছেই একটি ট্যাক্সিতে আরো দুইজন বসে। কোনোভাবেই রাজি করাতে না পেরে ওই ব্যক্তি জোর করে তার হাত থেকে চুড়ি খুলে নেয়ার চেষ্টা করে। তখন পুষ্পাবেন নিজের হাতের লাঠি দিয়ে পেটানো শুরু করেন ছিনতাইকারীকে। তার আওয়াজ শুনে ছুটে আসেন কাছেই দাঁড়িয়ে থাকা সবজি বিক্রেতা। হই হট্টগোল শুনে এগিয়ে আসেন বেশ কিছু পথচারী।

সবাই মিলে ধরে ফেলেন ছিনতাইকারীকে। ওই ছিনতাইকারী পরে গ্রেফতার হয়।

মায়ের এমন সাহসিকতায় অবাক ও একই সাথে গর্বিত তার ছেলে হরেন্দর ভল্লা (৫৭) এবং পুত্রবধূ জেসমিন (৫৭)। তারা জানান, জীবনে কোনো দিন কারো গায়ে হাত তোলেননি পুষ্পাবেন।