মেইন ম্যেনু

ছিনতাইকারী সেই পুলিশ কারাগারে

সিলেট নগরীর বারুতখানায় এক মহিলার টাকা ছিনতাইকারী সেই পুলিশ সদস্য শরীফ রানাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের নির্দেশে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিলেট কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহেল আহমদ।

সোহেল জানান, সোমবার রাতে ছিনতাইয়ের শিকার তামান্না আক্তার কলি বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। আজ মঙ্গলবার সিলেট মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট প্রথম আদালতে তাকে হাজির করা হয়। এ সময় আদালতের বিচারক সাহেদুল করিম তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

ওসি আরো জানান, ছিনতাইয়ের টাকা উদ্ধার এবং তার সহযোগীদের এখনো গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। তবে অভিযান অব্যাহত রযেছে বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, গতকাল সোমবার দুপুরে সিলেট নগরীর বারুতখানা এলাকায় তামান্না আক্তার কলি নামের এক মহিলার টাকা ছিনতাই করে পালিয়ে যাওয়ার সময় ছিনতাইকারী পুলিশ সদস্য শরীফ রানাকে আটক করে স্থানীয় জনতা।

তিনি সিলেট জেলা পুলিশের মোটরযান সেকশনের কনস্টেবল। তার আইডি নম্বর ৪৯৫।

ছিনতাইয়ের শিকার তামান্না আক্তার কলি ধোপাদিঘীর পাড় আল ফালাহ্ টাওয়ারের বাসিন্দা আনসার আলীর মেয়ে। তিনি সোমবার দুপুর পৌনে ১২টার সময় ২ লাখ টাকা নিয়ে তার ভাইয়ের সাথে বারুতখানাস্থ ডাচ বাংলা ব্যাংকে আসেন।

ব্যাংক থেকে আরো ৬ লাখ ৯০ হাজার টাকা উত্তোলন করে জিন্দাবাজারস্থ ব্র্যাক ব্যাংকে জমা করার উদ্দেশে রওয়ানা দেন। বারুতখানা পয়েন্টে এসে পৌঁছালে একটি মোটরসাইকেল এসে তার গতিরোধ করে। তার সাথে ব্যাগে থাকা দু’লাখ টাকা ছিনিয়ে নেয়।

এ সময় তার আর্তচিৎকারে রিকশা থেকে তার ভাই ও অন্যান্যরা এগিয়ে আসলে ছিনতাইকারী বারুতখানার দিকে দৌড় দেয়। পালানোর সময় আশপাশের সিকিউরিটি গার্ড ও জনতা তাকে ধরে ফেলেন। পরে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের হাতে সোপর্দ করেন।