মেইন ম্যেনু

ছিন্নমূল মানুষের বাসস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে

গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, ‘ছিন্নমূল মানুষের বাসস্থানের ব্যবস্থা করেই ঢাকাকে বাসযোগ্য করতে হবে। কারণ, এ জনগোষ্ঠী নাগরিক জীবনের জন্য অপরিহার্য।’

বুধবার রাজধানীর মহাখালীর ব্র্যাক সেন্টারে অনুষ্ঠিত আরবান ফোরাম আয়োজিত ‘নগর দরিদ্রদের জন্য আবাসন: সমস্যা, সম্ভাবনা এবং নীতি করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

সরকারের গৃহায়ণ নীতিমালায় ছিন্নমূল মানুষের বাসস্থানের পরিকল্পনা রাখা হয়েছে বলে এসময় তিনি জানান।

অনুষ্ঠানে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর আবাসন বিষয়ে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বুয়েটের স্থাপত্য বিভাগের অধ্যাপক শহিদুল আমীন।

ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ বলেন, ‘বলেন, সরকার ছিন্নমূল মানুষের উন্নত বাসস্থান নিশ্চিত করতে শহর সংলগ্ন এলাকায় জাতীয় গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে বহুতল ভবন নির্মাণ করছে। মিরপুরে জাতীয় গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষ বস্তিবাসীদের পুনর্বাসনের জন্য ২ হাজার ফ্ল্যাট নির্মাণ করছে। ৪৫০ বর্গফুটের এ ফ্ল্যাট বস্তিবাসীদের মধ্যে বরাদ্দ দেয়া হবে। প্রতিদিন ২৭৫ টাকা হারে ভাড়া দিয়ে বরাদ্দপ্রাপ্ত বস্তিবাসী ২০ বছরের মধ্যে এ ফ্ল্যাটের মালিক হবে। এ এলাকায় মধ্যবিত্ত ও নিম্ন মধ্যবিত্তের জন্য আরো প্রায় ৪০ হাজার ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে। বস্তিবাসিদের পুনর্বাসন কর্মসূচিকে আরো সম্প্রসারণ করার পরিকল্পনা আছে।’

তিনি বলেন, ‘বস্তিতে বসবাসকারীরা ধনীদের জীবনযাত্রার সঙ্গে নিরিবভাবে সম্পর্কিত। পরিচ্ছন্ন আবাসিক এলাকায় বিত্তশালীরা বসবাস করলে তাকে সহযোগিতা প্রদানকারী কোথায় থাকবে? এ বিষয়ে চিন্তাভাবনার অবকাশ আছে। দেশের বিপুলসংখ্যক ছিন্নমূল ও বস্তিবাসীর জন্য মানসম্মত জীবনের নিশ্চয়তা বিধান করা সরকারের একার পক্ষে সম্ভব নয়। ছিন্নমূল মানুষের সেবা গ্রহণকারী বিত্তশালীদেরও এ বিষয়ে উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।’

সেমিনারে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আব্দুল্লাহর সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন- অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান, ইউএনডিপির কান্ট্রি ডিরেক্টর পউলিন টামেসিস, আরবান ফোরামের উপদেষ্টা আবু আলম মো. সহিদ খান।