মেইন ম্যেনু

ছেলেদের সঙ্গে সুইস মুসলিম মেয়েদের সাঁতার বাধ্যতামূলক

সুইজারল্যান্ডে ছেলেদের সঙ্গে মুসলিম মেয়েদের সাঁতার শেখা বাধ্যতামূলক করে রায় দিয়েছে ইউরোপীয় মানবাধিকার আদালত-ইসিএইচআর।

‘সহশিক্ষা এবং সামাজিক অন্তর্ভুক্তির’ যুক্তি দিয়ে রায় নিজেদের পক্ষে নেয় সুইজারল্যান্ড।

এতে ধর্মীয় স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ হলেও ধর্মীয় স্বাধীনতা লংঘনের পর্যায়ে পড়ে না বলে রায়ে মন্তব্য করেছেন বিচারকরা।

তুর্কি বংশোদ্ভূত দুই সুইস নাগরিক বাসেল শহরে তাদের কিশোরী মেয়েদেরকে ছেলেদের সঙ্গে সাঁতার শিখতে দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে মামলাটি দায়ের করেছিলেন।

ওই সময় শিক্ষা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বয়োসন্ধিতে পৌঁছলে মেয়েরা একসঙ্গে ছেলেদের সঙ্গে সাঁতার কাটতে বাধ্য নয়। তবে ওই সময় তাদের বয়স ওই পর্যায়ে ছিল না।

দীর্ঘ বিতর্কের পর ২০১০ সালে ‘সন্তানের প্রতি দায়িত্ব পালন না করায়’ ওই মুসলিম মেয়েদের বাবা-মাকে যৌথভাবে ১৪০০ সুইস ফ্রাঙ্ক জরিমানা করা হয়েছিল।

তারা ওই সিদ্ধান্তকে ইউরোপিয়ান কনভেনশন অন হিউম্যান রাইটসের নবম অনুচ্ছেদ চিন্তা, নীতিবোধ ও ধর্মীয় স্বাধীনতার লংঘন বলে মন্তব্য করেছেন।