মেইন ম্যেনু

ছেলের ‘হত্যাকারীদের’ ধমকে প্রাণ গেল বাবার

রাজধানীতে ছেলের ‘হত্যাকারীদের’ ধমকে প্রাণ হারালেন আক্তার হোসেন নাননু(৬০) নামের এক ব্যক্তি। নিজ বাসার সামনে বুধবার দুপুরে ছেলের ‘হত্যাকারীদের’ ধমকে স্ট্রোক করলে বিকেল সোয়া ৫টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। তিনি সপরিবারে হাজারীবাগ গণকটুলির ২০/১ নম্বর বাসায় থাকতেন।

নিহতের শ্যালক আবদুস সালাম জানান, ৮ মাস আগে ঐ এলাকার মিলন রহমানসহ আরও কয়েকজন মিলে নাননুর ছেলে জাহিদ হোসেনকে (২৪) পিটিয়ে হত্যা করে। পরে থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা না নেওয়ায় নাননু সিএমএম কোর্টে মামলা করেন। এই মামলা তুলে নেওয়ার জন্য তারা নানা সময় হুমকিধামকি দেয়।

বুধবার দুপুরে তারা আদালত থেকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য বাসার গেটের সামনে পেয়ে নাননুকে হুমকিধামকি দেয়। এতে সে ভয়ে স্ট্রোক করে। তাৎক্ষণিক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। বিকেল সোয়া ৫টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ব্যাপারে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত ডাক্তার সাকি মোহাম্মদ আব্দুল বাকি বলেন, মৃতের স্ত্রী জাহেরা বেগম অভিযোগ করেন তার স্বামীকে কয়েকজন হুমকি-ধামকি দেওয়ার একপর্যায়ে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। এতে তিনি স্ট্রোক করেন। হাসপাতালে নিয়ে আসলে আমরা তাকে মৃত অবস্থায় পায়।

তিনি বলেন, আক্তার হোসেনের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।