মেইন ম্যেনু

ছোট বেলার যৌন হয়রানির কষ্টের অভিজ্ঞতা জানালো তরুণী

জীবনের প্রথম চুম্বনের অভিজ্ঞতা বেশিরভাগই মানুষের জন্য সুখকর ও রোমাঞ্চকর হয়। কিন্তু আমার ক্ষেত্রে তা ছিল এক ভয়ানক অনুভূতি।আমার জীবনে যখন প্রথম চুম্বনের স্বাদ পাই তখন আমি এতটাই ছোট ছিলাম যে সে অভিজ্ঞতার কথা মনে পড়লে এখনও ভয়ে গা শিহরণ দিয়ে ওঠে। যে ব্যক্তিটার সাথে আমার এমন তিক্ত অভিজ্ঞতা হয় সে ছিল আমার সবচেয়ে কাছের বান্ধবীর দাদা।

ভারতে বহুল প্রচারিত পত্রিকা টাইমস অব ইন্ডিয়ার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মধ্যবয়সী নারী এ ভাবেই তার ছোট বেলার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেছেন। তিনি এক নিবন্ধে বলেছেন, আমি ওই লোকটিকে প্রথম চুমু খেতে দেখি আমার বয়সী ছোট্ট একটি শিশুকে। শিশুটি আমার বান্ধবীর মায়ের ছাত্রী ছিল। কিন্তু জানতাম না, ঠিক ১৫ মিনিট পরেই আমি লোকটির পরবর্তী শিকারে পরিণত হতে যাচ্ছি।

যখন ওই লোকটি আমাকে তার কাছে টেনে নিয়ে যায় এবং ঝাঁপটে ধরে তখনও আমি কিছুই বুঝতে পারছিলাম না কি হতে যাচ্ছে। তবে এইটুকু ঠিকই বুঝতে পারছিলাম, আমি নির্যাতনের শিকার হচ্ছি।

আমি তখনও জানতাম না, আমার জন্য সামনে আরো ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা অপেক্ষা করছে। আমি পুরো ঘটনাটি মায়ের কাছে বলি। মা পুরো ঘটনাটি শুনে খুব হালকাভাবে নিয়ে বললেন, ওই বাড়িতে এক সপ্তাহ না যেতে। আমি বিশ্বাস করতেই পারছিলাম না যে, আমাকে যারা এই পৃথিবীতে এনেছেন তারাই ব্যাপারটিকে কোনো গুরুত্ব দিচ্ছেন না। এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেয়া তো দূরের কথা।

আমি বুঝতে পেরেছিলাম, এই ব্যাপারটা আম্মুর কাছে ছিল শুধুই একটা চুমু। কিন্তু যখনই এই ঘটনাটি আমার মনে পড়ে তখনই ভয়ে আঁতকে উঠি। যাক অনেকদিন পর এই তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা যখন আমি প্রায় ভুলেই গেছিলাম ঠিক তখনই আমার জীবনে ঘটল আরেকটি তিক্ত অভিজ্ঞতা। এবার আমার বান্ধবীর বাবাই এই অপ্রত্যাশিত ঘটনা ঘটালেন।

একদিন বান্ধবীর মাসহ ওর বাসায় টিভিতে সিনেমা দেখছিলাম। যখন রুমের পরিবেশটা একটু সিনেমা হলের মত বানানোর জন্য বাতি নেভানো হল তখন বান্ধবীর বাবা আমার পাশে এসে বসলেন।

হঠাৎ লক্ষ্য করলাম, বান্ধবীর বাবার হাত আমার পা স্পর্শ করছে। আমি ভাবলাম, উনার হাতটা হয়তো ভুলে আমার পায়ে লেগেছে। কিন্তু ঘটনা তা না, উনি বার বার পা স্পর্শ করতে লাগলেন। আমি সাথে সাথে উঠে দাঁড়িয়ে গেলাম এবং বান্ধবীকে বলে বাসায় চলে আসলাম। এ সময় অনেক চিৎকার করে কান্না করতে চাইলাম কিন্তু পারলাম না ভয়ে। কেউ যদি শুনে ফেলে। এমনকি আমার বান্ধবীকেও এই ঘটনাটিকে বলতে পারলাম না।

এই দুটি ঘটনা আমাকে এখনও পীড়া দেয়। তবু চেষ্টা করছি যা ঘটেছে তা ভুলার জন্য। তবে আপনার যারা আমার এই দুঃসহ স্মৃতির গল্পটি পড়লেন তাদের অনুরোধ করব, আপনার সন্তান বা পরিচিত কারো ক্ষেত্রে যদি এই ঘটনা ঘটে সাথে সাথে পদক্ষেপ নিন। প্রয়োজনে এসব যৌন হয়রানির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিন।