মেইন ম্যেনু

ছোবল দেয়া সাপকেই বাঁচালেন তিনি

সত্যিকারের জীবে দয়া আর কাকে বলে! ছোবল খেয়ে বিষাক্ত সাপটিকে মারতে দিলেন না এক গ্রাম্য নারী। সাপটাতো নিরীহ প্রাণী, ভয় পেয়ে ছোবল দিয়েছে- তার বক্তব্য!

ভারতের ঝাড়খণ্ড রাজ্যের সরাইকেলা গ্রামের গৃহবধূ সুরকুই বোদরা এই অনন্য নজির স্থাপন করলেন।

জানা যায়, গত রোববার সন্ধ্যার দিকে ঝোপঝাড়ে ঘেরা টিউবওয়েল পাড়ে পানি নিতে কেউটে সাপের লেজে পা দিয়েছিলেন সুরকুই (৩৫)। মুহূর্তেই পায়ে ছোবল বসায় সাপটি। আর্ত চিৎকারে ভিড় জমে যায়। লোকজন লাঠি নিয়ে তেড়ে আসে সাপটিকে মারতে।

কিন্তু সুরকুই সবাইকে নিরস্ত্র করে বলেন, ‘ও তো নিরীহ প্রাণী। ভয় পেয়ে কামড়ে দিয়েছে। ওকে মেরো না।’

শুধু তা-ই নয়, সাপটিকে সুরক্ষিত রাখতে পাশেই পড়ে থাকা একটা প্লাস্টিকের কৌটোয় ভরে নেন সাপটিকে। হাসপাতালে সঙ্গে নিয়ে গেছেন কৌটোটি।

তিনি বলেন, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলে সাপটিকে নিরাপদ কোনও জায়গায় ছেড়ে দেবেন।

বর্তমানে তিনি সরাইকেলার জেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। হাসপাতালের বিছানার পাশেই কৌটাবন্দি কেউটে।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, সুরকুইয়ের অবস্থা স্থিতিশীল।

এই অবস্থাতে সুরকুই বলেন, ‘নিরীহ প্রাণীটাকে মারলে আমার বাচ্চাদের জীবনে অমঙ্গল নেমে আসতে পারত। কোনও ভাবেই সাপটাকে এখন কাছছাড়া করবো না। সুস্থ হলে ওকে কোথাও ছেড়ে দেব।’