মেইন ম্যেনু

ছড়াকার আমিনুল ইসলাম মামুনের জন্মদিন আজ

৮ সেপ্টেম্বর ছড়াকার ও কথাসাহিত্যিক আমিনুল ইসলাম মামুনের জন্মদিন। ১৯৭৭ সালের এ দিনে তিনি লক্ষ্মীপুর জেলাধীন রামগঞ্জ থানার পূর্ব বিঘা গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মরহুম আলহাজ্ব মাওলানা এ কে এম সিরাজুল ইসলাম সাবেক সরকারী কর্মকর্তা। মাতা আলহাজ্ব শামসুন নাহার একজন গৃহিনী। চার ভাই এক বোনের মধ্যে তিনি দ্বিতীয়।

আমিনুল ইসলাম মামুন ১৯৯৪ সালে কুমিল্লা বোর্ডের অধীনে নোয়াগাঁও জনকল্যান উচ্চ বিদ্যালয় থেকে প্রথম বিভাগে এস এস সি, ১৯৯৬ সালে ঢাকা বোর্ডের অধীনে ঢাকা সিটি কলেজ থেকে প্রথম বিভাগে এইচ এস সি, ১৯৯৯ সালে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ঢাকা কলেজ থেকে দ্বিতীয় শ্রেণিতে ব্যবস্থাপনা বিষয়ে অনার্স ও ২০০০ সালে দ্বিতীয় শ্রেণিতে মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন। ২০০৫ সালে অর্জন করেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে মহানগর ল’ কলেজ থেকে আইন বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রি। ২০০৬ সালে ইনষ্টিটিউট অব চার্টার্ড একাউন্ট্যান্টস অব বাংলাদেশের-এর অধীনে জে ইউ আহমেদ এন্ড কোং থেকে শেষ করেন তিন বছর মেয়াদী কোর্স (সি এ – সি সি)। ২০১৩ সালে আয়কর আইনজীবী হিসেবে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের তালিকাভূক্ত হন। একই বছর বাংলাদেশ ইসলামী ইউনিভার্সিটি (বি আই ইউ) থেকে এ গ্রেডে (প্রথম শ্রেণি সমমান) এম বি এ ডিগ্রি অর্জন করেন।

অধিকতর সুন্দর, সৃষ্টিশীল ও প্রগতিশীল সমাজ বিনির্মানের উদ্দেশ্যে তার লেখালেখি। প্রথম লেখা প্রকাশিত হয় ১৯৯৮ সালে সাপ্তাহিক ‘জনতার ডাক’ পত্রিকায়। পেশাগত জীবনে তিনি একটি গ্রুপ অব কোম্পানীর সহকারী ব্যবস্থাপক হিসেবে কর্মরত আছেন। এ পর্যন্ত প্রকাশিত হয়েছে তার ৮টি গ্রন্থ। গ্রন্থগুলো হচ্ছে- দুষ্টু ছেলের দল (ছড়া-২০০৪), কানামাছি (ছড়া-২০০৭), মন ছুঁয়েছে মন (উপন্যাস-২০০৯), শিকল ভাঙার ছড়া (ছড়া-২০১০), এক জীবনের গল্প (উপন্যাস-২০১২), তারা জ্বলে কথা বলে (ছড়া-২০১৪), পরীর নাম লজ্জাবতী (শিশুতোষ গল্প-২০১৫) এবং ভূত দেখেছি কয়েকবার (শিশুতোষ গল্প-২০১৫)। ভ্রমণ তার শখের মধ্যে অন্যতম। তিনি ছড়া, কবিতা, ছোটগল্প, উপন্যাস, অনুবাদ, প্রবন্ধ, ফিচার, গান, গ্রন্থালোচনা প্রভৃতি বিষয়েই লিখছেন।

তিনি সাহিত্য শিল্প ও সংস্কৃতি বিষয়ক ম্যাগাজিন তুষারধারা’র সম্পাদক, দেশের প্রথম সাহিত্য বিষয়ক অনলাইন নিউজ পোর্টাল তুষারধারা ডট কম-এর (www.tushardhara.com) সম্পাদক, টুপটাপ-এর (শিশুতোষ ম্যাগাজিন) সাবেক সহ-সম্পাদক এবং ত্রিশাল প্রতিদিন ডট কম (www.trishalprotidin.com)-এর উপদেষ্টা সম্পাদক। আমিনুল ইসলাম মামুন তুষারধারা নামক গ্রন্থ প্রকাশনা সংস্থাটিরও স্বত্ত্বাধিকারী। তিনি বাংলা একাডেমির সদস্য, জাতীয় শিশু কিশোর সংগঠন আবাবীলের সাবেক সাহিত্য সম্পাদক, প্রতিষ্ঠাতা- সন্তান দিবস (১৫ নভেম্বর), প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক- তরুণ লেখক ফোরাম, প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি- বাংলা সাহিত্য কেন্দ্র, প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি- অনলাইন রাইটার্স ফোরাম, প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি- এইম স্পোর্টিং ক্লাব, প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি- ফমাসিক সাহিত্য সংসদ (ফতুল্লা-মাতুয়াইল-সিদ্ধিরগঞ্জ-কদমতলী এলাকার একটি সাহিত্য সংগঠন), প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি- রামগঞ্জ সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক একাডেমি। তার স্ত্রীর নাম উম্মে ফারজানা ফেরদৌস (আইরিন) ও কন্যার নাম আমরিন মাহনূর (মানহা)। সাহিত্যের স্বীকৃতিস্বরূপ অর্জন করেছেন আবাবীল সাহিত্য সম্মাননা-২০০৯, প্রতিভা প্রকাশ লেখক সংবর্ধনা ২০১১, দানবীর হাজী মোহাম্মদ মুহসিন সম্মাননা-২০১১, মধ্যমণি- ম্যাজিক লণ্ঠন (৪৫০তম আড্ডা), মানব কল্যাণ পরিষদ লেখক সম্মাননা-২০১৪, রায়পুর তরুণ ও যুব ফোরাম বিশেষ সম্মাননা, স্বপ্ন সিঁড়ি সাহিত্য সম্মাননা-২০১৫, সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডের জন্য আবাবীল সেরা কর্মী-২০১৫ পদকসহ বিভিন্ন পুরস্কার ও সম্মাননা। তিনি বাংলা ব্লগ আন্দোলন দশকের (২০১০ পর্যন্ত) অন্যতম ব্লগারদের একজন।



« (পূর্বের সংবাদ)
(পরের সংবাদ) »