মেইন ম্যেনু

ছয়টি দেশের ১০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ডক্টরেট ডিগ্রি পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

ছয়টি দেশের ১০টি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি ডক্টরেট ডিগ্রি পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিন। তিনি বলেছেন, আরও অনেক নামকরা বিশ্ববিদ্যাল তাকে ডক্টরেট ডিগ্রি দেয়ার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছিল, কিন্তু স য়ের অভাবে তার পক্ষে সেখানে যাওয়া সম্ভব হয়নি।

বুধবার বিকেলে দশম জাতীয় সংসদের নবম অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে চট্টগ্রাম-১২ আসনের সরকারদলীয় সদস্য সামশুল হক চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে এসব তথ্য জানান প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেসব বিশ্ববিদ্যালয় ও দেশ থেকে ডক্টরেট ডিগ্রি পেয়েছেন, তার মধ্যে রয়েছে ভারতের ত্রিপুরা বিশ্ববিদ্যালয়, রাশিয়ার স্টেট ইউনিভার্সিটি অব পিটার্সবার্গ ও পিপলস বিশ্ববিদ্যালয়, যুক্তরাষ্ট্রের ব্যারি বিশ্ববিদ্যালয় ও ব্রিজপোর্ট বিশ্ববিদ্যালয়, বেলজিয়ামের ক্যাথলিক বিশ্ববিদ্যালয় অব ব্রাসেলস, অস্ট্রেলিয়ান ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, ভারতের বিশ্ব-ভারতি বিশ্ববিদ্যালয়, এবারটে বিশ্ববিদ্যালয় যুক্তরাজ্য এবং ওয়াসিডা বিশ্ববিদ্যালয় জাপান।

প্রধানমন্ত্রী জানান, জাতিসংঘসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার পক্ষ থেকে তিনি ৮টি পদক পেয়েছেন। এর মধ্যে রয়েছে চ্যাম্পিয়ন্স অব আর্থ, মাদার তেরেসা পদক, মহাত্মা গান্ধী পদক, সেরেস পদক, এমডিজি পুরস্কার, ইন্ধিরা গান্ধী শান্তি পুরস্কার, সাউথ-সাউথ পুরস্কার, পিস টি।

বাংলাদেশের সঙ্গে বহির্বিশ্বের যোগাযোগ ও বাণিজ্য সম্প্রসারণের লক্ষ্যে এশিয়া, ইউরোপ, আমেরিকা ও আফ্রিকা মহাদেশের মোট ১৩টি দেশে নতুন মিশন খোলা হয়েছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী। সেগুলো হলো গ্রিসের এথেন্স, ইটালির মিলান, ভারতের মুম্বাই, তুরস্কের ইস্তাম্বুল, পর্তুগালের লিসান, চীনের কুনমিং, লেবাননের বৈরুত, মেক্সিকোর মেক্সিকো সিটি, ব্রাজিলের ব্রাসিলিয়া, মরিশাসের পোর্ট লুইস, ডেনমার্কের কোপেনহেগেন, পোল্যান্ডের ওয়ারশ এবং অস্ট্রিয়ার ভিয়েনা।

প্রধানমন্ত্রী জানান, আরও ৮টি দেশে- ইথিওপিয়ার আদ্দিস আবাবা, নাইজেরিয়ার আবুজা, রুমানিয়ার বুদাপেস্ট, আলজিরিয়ার আলজিয়ার্স, আফগানিস্তানের কাবুল, সুদানের খার্তুম, সিয়েরালিওনের ফ্রিটাউন এবং ভারতের গোহাটিতে নতুন মিশন খোলার প্রক্রিয়া চলছে।



« (পূর্বের সংবাদ)